আমাদের Telegram এ ফলো করুন সবার আগে সর্বশেষ আপডেট পান Click Here

Google News এ ফলো করুন Click Here

অভিযোগ উঠল রাইফেল ফ্যাক্টরির কোষাধ্যক্ষ মধুসুদন মুখোপাধ্যায় এর বিরুদ্ধে!

Current India Economy Features

এবার আর্থিক তছরুপের অভিযোগ উঠল ইছাপুর রাইফেল ফ্যাক্টরির কোষাধ্যক্ষ  মধুসুদন মুখোপাধ্যায় এর বিরুদ্ধে।বুধবার সকালে তাঁকে গ্রেফতার করল সিবিআই।কোষাধ্যক্ষ থাকাকালীন কোটি কোটি তছরুপ করেছেন এইঘটনায়  আরও কেউ জড়িত আছে কী না খতিয়ে দেখছেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকরা।

ব্যারাকপুরের  এসএন ব্যানার্জি রোডের বাড়ি থেকেতাঁকে গ্ৰেফতার করে সিবিআই।   মঙ্গলবার নিজাম প্যালেসে সারা রাত মধূসূদন মুখোপাধ‍্যায়কে জেরা করার পর বুধবার সকালে তাঁকে গ্ৰেফতার করা হয়। জেরার সময় তিনি সিবিআই এর সব প্রশ্নের যথাযত উত্তর দিতে পারেননি তারফলে তাঁকে গ্ৰেফতার করা হয়।আর্থিক তছরুপের সঙ্গ আরও কেউ জড়িত আছে কী না খতিয়ে দেখছেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার আধিকারিকরা।  

জানা গিয়েছে যে ইছাপুর রাইফেল ফ্যাক্টরির অ্যাকাউন্ট বিভাগের কর্মী ছিলেন মধূসূদন মুখোপাধ্যায়।এরপর পদোন্নতি পেয়ে কোষাধ্যক্ষ হন মধুসুদন মুখোপাধ্যায়।কর্মীদের অভিযোগ করেছেন মধূসূদন বাবু কোষাধ্যক্ষ থাকার সময়ে কোটি কোটি তছরুপ করেছেন। তদন্তে নেমে ব্যারাকপুরের  এসএন ব্যানার্জি রোডের বাড়ি থেকে ধৃত মধূসূদন মুখোপাধ‍্যায়কে গ্ৰেফতার করে সিবিআই। 

কেন্দ্রীয় তদন্তকারী তরফে  খবর পাওয়া যাচ্ছে যে মধুসুদন মুখোপাধ্যায় ২০১২ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত ব্যক্তিগত প্রয়োজনে টাকা তছরুপ করেছেন।এ ছাড়া আর কোন সঠিক তথ‍্য পাওয়া যাচ্ছে না।কিন্তু  কত টাক তিনি তছরুপ করেছেন তার সঠিক প্রমান পাওয়া যাচ্ছে না। তদন্তকারীরা দাবী করছেন, এ পর্যন্ত তছরুপের পরিমান ১ কোটি ৭০ লক্ষ টাকার প্রমাণ পেয়েছে।জাল নথিপত্র ব্যবহার করে  বার বার টাকা তুলেছেন মধূসূদনবাবু।

সিবিআই জেরা করার সময়  সব প্রশ্নের জবাব দিতে পারেননি মধুসুদন। তাঁর বয়ানে অনেক অসঙ্গতি লক্ষ‍্য করা যায়।এরপর তাঁকে সকালে গ্ৰেফতারের  সিদ্ধান্ত নেয় আধিকারিকরা।সিবিআই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় মামলা করেছে। কয়েক  দিন আগে কলকাতার গার্ডেনরিচে দক্ষিণ-পূর্ব রেলের সদর অফিসে হানা দিয়ে সিবিআই ঘুষ কান্ডে গ্ৰেফতার করে মহিলা-সহ ২ আধিকারিকে।আবার ও আর্থিক তছরুপের অভিযোগে গ্রেফতার করলেন ইছাপুর রাইফেল ফ্যাক্টরির  কোষাধ্যক্ষ মধূসূদন মুখোপাধ‍্যায়কে।