assam cm

গতকাল সোমবার অসমের বিধানসভায় পেশ করা হয় এক নতুন আইন। এই আইনের মতে হিন্দু,জৈণ,সিখ তথা অন্যান্য যেই ধর্ম বা জাতির মানুষ গো-মাংস সেবন করেন না তাদের এলাকা বা আসে পাশের কোনো যায়াগায় গো-মাংস বিক্রি করা নিশিদ্ধ। এমনকি যেই যায়গায় হিন্দু,জৈণ,সিখ ধর্মের লোক বাস সংখ্যাগরিষ্ঠ ভাবে বাস করেন সেই যায়গায় এরকম কিছু বিক্রি করলে অথবা খেলে হতে পারে ৩ লক্ষ টাকার জরিমানা সহ ৮ বছরের কারাদন্ড। এই ভুল দ্বিতীয় বার করলে হতে পারে দ্বিগুন স্বাস্তি।

এমনকি কোনো মন্দির বা পবিত্র ধর্মিয় স্থলের ৫ কিলোমিটারের ধারে কাছেও যাতে গো-মাংস বিক্রি না করা হয় বলে জানানো হয়েছে এই বিলে। সম্ভবত গোহত্যা কমাতে মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা পেশ করেন অসম গো-সুরক্ষা বিল ২০২১।

এই বিলে স্পষ্ট লেখা আছে গোহত্যা, গো মাংস খাওয়া অথবা গরু পাচারের বিরুধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এই নিয়ম গুলি মেনে চোললে ভারত বাংলাদেশে বেয়াইনি গরু পাচার বন্ধ হতে পারে বলে নিজের আশা ব্যাক্ত করে অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা।

তিনি আরও বলেন এর আগের বিলে বেশ কিছু ফাঁক রয়েছে তাই নতুন বিল জারি করার দাবি তিনি জানান। পুরনো বিলের মতে ১৪ বছর বয়সি গরুর হত্যা নিয়ে বিশেষ কিছু লেখা নেই। তবে নতুন বিলের অনুযায়ি গোহত্যার বিরুধে রয়েছে বেশ কড়াকড়ি।

রাজাস্থান ও মাধ্যপ্রাদেশে এই রকম আইন আছে যাতে নির্দিষ্ঠ ভাবে উল্লেখ্য করা হয়েছে গাভী হত্যা নিশিদ্ধ। তবে এই নতুন আইনের গোহত্যার তালিকা থেকে বাদ রাখা হয়েছে মোষ কে। এমনকি প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া যেকোনো গবাদি পশুদের হত্যা করাও বারন বলে জানান অসমের মুখ্যমন্ত্রি।

তবে অসম সরকারের পেশ করা এই নতুন বিলটি কবে পাশ করা বা এটি কার্য্যকর হবে কি না তা এখন নির্দিষ্ট ভাবে জানান নি।

By Nisha Das

Nisha Das, Publisher Of VoiceBharat News nisha@voicebharat.com