কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

rituparna ghosh

ঋতুপর্ণ ঘোষের জন্মদিনে দেখে নেওয়া যাক তাঁর জীবনের কিছু রহস্যভরা কাহিনী

Uncategorized

বাংলা চলচ্চিত্র ইতিহাসে এক চিরস্মরণীয় নাম ঋতুপর্ণ ঘোষ । আজ থেকে বহু বছর আগে তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেলেও রয়ে গেছে তাঁর অসাধারণ সৃষ্টিসমূহ । আজ শিল্পীর জন্মদিনে স্মৃতির সরণি বেয়ে ঘুরে আসা যাক তাঁর শিল্পময় গ্রিনরুমে । 
১৯৬৩ সালে জন্মগ্রহণ করা এলজিবিটি সম্প্রদায়ের বিশেষ ব্যক্তিত্ব ঋতুপর্ণ ঘোষ ছিলেন অত্যন্ত খোলাখুলি মনের মানুষ । বাংলা চলচ্চিত্র জগতে তাঁর অনন্য চিন্তাধারাই তাঁকে শ্রেষ্টত্বের সিংহাসনে বিরাজমান করায় , তা অনস্বীকার্য ।

১৯৯২ সালে হিরের আংটি সিনেমা পরিচালনার মাধ্যমে তাঁর চলচ্চিত্র জগতে আগমন । এরপর একের পর এক স্মরণীয় সিনেমা উপহার দেন আমাদের । অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে যে তাঁর বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক সর্বজনবিদিত ছিলো তা বলা যায় । 
এছাড়া অভিনয়তেও ঋতুপর্ণ ঘোষ ছিলেন অনন্য প্রতিভার অধিকারী ।

কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304
ritu

১৯৯৭ থেকে ২০০৪ পর্যন্ত তিনি আনন্দলোক সম্পাদনার দায়িত্ব সামলান । তাঁর পরিচালিত সিনেমাগুলির মধ্যে বিখ্যাতগুলি যথাক্রমে ১৯৯৪ সালে হিরের আংটি এবং জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত মুভি উনিশে এপ্রিল । ১৯৯৭ সালে দহন , ২০০২ এ তিতলি , ২০০৩ সালে চোখের বালি ও ২০০৪ এ রেনকোট তাঁর অনন্য সৃষ্টির অন্যতম বলে গণ্য হয় । এছাড়া ২০০৭ সালে দ্য লাস্ট লিয়ার এবং পরের বছরে খেলা মুভি-ও অসামান্য বলা চলে এবং ২০১০ এর নৌকাডুবি মুভি অসংখ্য বাঙালির হৃদয়ে রয়ে গেছে আজও । 
দীর্ঘ ৮ বছর আগে সকলকে বিদায় জানালেও আজ ঋতুপর্ণ ঘোষ নামটি আমাদের আপামর বাঙালির হৃদয়ের কোণে সমানভাবে বিদ্যমান রয়ে গেছে এই কৃতিত্ব শুধু মাত্র এবং একমাত্র তাঁর ।