আমাদের Telegram এ ফলো করুন সবার আগে সর্বশেষ আপডেট পান Click Here

Google News এ ফলো করুন Click Here

কাউন্সিলর প্রার্থীর দাম নিয়ে অডিও প্রকাশ্যে, অস্বস্তিতে বঙ্গ বিজেপি

Current India Features Politics

পুরভোটের কাউন্সিলর প্রার্থীর দর উঠল ১ লাখ টাকা! যারা শুনছেন তাদেরই চক্ষু চড়কগাছ। নিজের দলের বিরুদ্ধে আর্থিক কেলেঙ্কারি নিয়ে প্রাজ্ঞ নেতা তথাগত রায় ইতিমধ্যেই প্রশ্ন তুলে দিয়েছিলেন। প্রমাণের দাবি করে তাঁর বিরুদ্ধে একটি মামলাও দায়ের হয়। যদিও প্রবীণ নেতার ওই এধরনের অভিযোগকে বিশেষ আমল দেয়নি বিজেপি শিবির। তার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার একেবারে প্রকাশ্যে চলে এল প্রার্থী কেনাবেচা নিয়ে বিজেপি সম্পর্কিত একটি অডিও ।


পুুরভোটের প্রার্থীর দাম নিয়ে দর কষাকষি চলছে, এমনই একটি অডিও ভিস্যুয়াল ক্লিপ হঠাৎই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে যায়। উল্লেখ্য, এই অডিওর সত্য বা মিথ্যা সংবাদ মাধ্যমে যাচাইকৃত নয়। তবে, মূহুর্তে ভাইরাল হয়ে যাওয়া অডিওটি সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস তাদের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে প্রকাশ করেছে।


এই অডিওতে দেখা যাচ্ছে বিজেপির প্রীতম সরকারের সাথে অন্য এক বিজেপি নেতার কথোপকথন। ৮ টি কাউন্সিলর প্রার্থী নিয়ে রীতিমতো দরকষাকষি চলছে। দাম উঠছে ১ লাখ পর্যন্ত! এই অডিও ভিস্যুয়াল ক্লিপ ইতিমধ্যেই সংবাদমাধ্যমগুলির নজরে এসে যাওয়ায় প্রীতম সরকার নামধারী ওই নেতার সাথে আপাতত সমস্ত সংস্রব ছিন্ন করেছে বিজেপি।


কয়েকদিন আগে বিজেপির শংকর শিকদারের নামেও প্রার্থী বেচাকেনার অভিযোগ তুলে ফেস্টুন টাঙিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের নজরে আনার চেষ্টা করেছিল গেরুয়া শিবিরেরই একাংশ। তখনও রাজ্য বিজেপি বিশেষ গুরুত্ব দেয়নি। আজ এই অডিওটি যথারীতি বিজেপিকে অস্বস্তির মুখে ফেলে দিয়েছে।

উল্লেখ্য, প্রীতম সরকার তৃণমূল থেকেই বিজেপিতে এসেছিলেন। কয়েকদিন আগে শংকর শিকদার ও শশী অগ্নিহোত্রীকে নিজের খরচ বহন করে দিল্লীর এক মন্ত্রীর প্রোগ্রামে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন বলে জানা গেছে। ফলে এঁদের অন্তর্লীন যোগাযোগ খুবই স্পষ্ট।


আর্থিক লেনদেন প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, “কেউ অভিযোগ তুললেই হবেনা, বিভিন্ন স্বার্থে লোকে এগুলো করে থাকে। এর কোনো প্রমাণ লাগেনা।

কিন্তু যারা জেল খেটে এসেছে, যাদের নামে কেস চলছে সেটা তো প্রমাণ করতে হবেনা! দিনের পর দিন জেল খেটে তারা বড়বড় কথা বলছে”।