কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

কেউ ঘুষ চাইলে দিতে পারেন ‘জিরো রুপি নোট : জেনে নিন কোথায় পাবেন, কীভাবে

Current India Features

দেখতে হুবহু ৫০/- টাকার নোট। কিন্তু হাতে নিলেই দেখবেন সেটা ৫০ নয় আসলে ‘শূন্য’। না, নকল হলেও এটি নোট নয়। বরং যারা জনসাধারণের কাছে ঘুষ চেয়ে দুর্নীতিমূলক খেলা করে, তাদেরই বিরুদ্ধে সপাট জবাব — এই নোট।


এর মূল্য আসলে শূন্য অঙ্ক। ২০০৭ সালে ‘ফিফ্থ পিলার’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা প্রচলন করে এই নোটের। সেসময় প্রায়। ২৫,০০০ জিরো রুপি অর্থাৎ শূন্য অঙ্কের নোট ছেপে মার্কেটে উপভোক্তাদের হাতে হাতে পৌঁছে দেওয়া হয়। রেল স্টেশন, বাস স্ট্যান্ড প্রভৃতি জনসমাগম পূর্ণ এলাকায় ওই সংস্থার কর্মীরা এই নোট সকলের কাছে পৌঁছে দেন, সঙ্গে দুর্নীতিবিরোধী বার্তাও। জনগণের মধ্যে যা ব্যাপক সাড়া ফেলে।

কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304


‘ফিফ্থ পিলার ‘ সংস্থার সভাপতি বিজয় আনন্দ তাঁদের এই দৃষ্টান্তমূলক পদক্ষেপের জনপ্রিয়তার উল্লেখ করে বলেছিলেন ,”সাধারণ লোকের হাতে এই নোট থাকায় তারা প্রতিবাদ করতেও সাহস দেখাতে পারছে। যেমন, এক অটোওয়ালাকে রাস্তায় আটকে ঘুষ চেয়েছিল ট্রাফিক পুলিশ। অটোওয়ালাও বিনা বাক্যব্যয়ে ‘জিরো’ টাকার নোট ধরিয়ে দেন। পুলিশটি প্রথমে থতমত, তারপর নোটটি খুঁটিয়ে দেখে লজ্জায় হেসে ফেলেন এবং ছেড়ে দেন অটোওয়ালাকে”।


এমনই দৃষ্টান্ত প্রচুর রয়েছে। ২০০৭ এর পর থেকে এখনও যা ফলপ্রসূ হয়ে চলেছে। প্রায় ২৫ লক্ষ জিরো অঙ্কের নোট ছড়িয়ে দিতে পেরেছে ওই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। নোটটির আলাদা বৈশিষ্ট্য হল –এর ডেসক্রিপশন।

সাধারণ নোটে যেখানে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া লেখা থাকে সেই জায়গায় লেখা ‘eliminate corruption at all level’, আর গভর্নরের স্বাক্ষরের স্থানে লেখা ‘I promise to neither accept nor give bribe’ অর্থাৎ যিনি নোটটি ব্যবহার করছেন তিনি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ কখনো ঘুষ দেবেন না এবং নেবেন না। এরপর কেউ ঘুষ দিতে বা নিতে একবার অন্তত চিন্তা করবেই।


এই নোট প্রচলনের কথা যিনি প্রথম ভাবেন তাঁর নাম সতীন্দ্রমোহন ভাগবত। পদার্থ বিজ্ঞানের শিক্ষক এবং মেরিন ইউনিভার্সিটির অধ্যক্ষ তিনি। পরে তাঁর এই প্রস্তাবনাকেই বাস্তবে রূপায়ণ করে ‘ফিফ্থ পিলার’ সংস্থা।


দুর্নীতির প্রতিবাদে শান্তিপূর্ন জবাব হিসেবে এই অভিনব পদক্ষেপ সত্যিই অতুলনীয়। এই নোট যে কেউ পেতে পারেন। ভারতের হিন্দি, মালয়ালম, কন্নড় প্রভৃতি ভাষায় এই নোট উপলব্ধ। ‘ফিফ্থ পিলার ‘ -এর নিজস্ব ওয়েবসাইটে গিয়ে জিরো রুপি নোট ডাউনলোড করে নেওয়া যায়।