IMG_20211011_145534

দুর্গোৎসব থিমে রাজনৈতিক বাতাবরণ এর আগে বড় একটা দেখা যায়নি। ঠিক যেমন রাজনীতির মঞ্চে ‘খেলা’ দেখার মতো চমৎকার বিষয় আগে দেখেননি কেউ! এবার দুর্গাপূজোয় যেন তারই রমরমা। আর সেই নতুন ট্রেন্ডেই নজর কাড়লো ভবানীপুর দুর্গোৎসব সমিতি, তাদের পূজোয় থিম “খেলা হবে” দিয়ে।

মনে হবে ফুটবল গ্রাউন্ডেই এসে পড়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর পাড়ার পূজো বলে কথা, সেখানে খেলা হবেনা তা কি হয়? ঠিক ধরেছেন ‘খেলা হবে’। ভবানীপুর দুর্গোৎসবের এবারের থিমের নামই তাই।
শুধু নামেই মিল নয়, গোটা পূজোমন্ডপটা যেন ‘খেলা হবে’ শ্লোগানেরই বাস্তবায়ন। ঘাস ছাঁটা জমি যেন ফুটবলেরই মাঠ, তৈরি করা হয়েছে সত্যিকারের গোলপোস্ট। পায়ে পায়ে ছড়িয়ে আছে ফুটবল। আর একবারে মূল মন্ডপের পাশেই সেই বিখ্যাত পোস্টার — নীল সাদা শাড়ি, পায়ে ব্যান্ডেজ, অন্য পায়ের নিচে ফুটবলের ছবি। ওপরে লেখা রয়েছে — ‘এবার ভবানীপুরে মায়ের হাত ধরে খেলা হবে’। এই মা হলেন দুর্গতিনাশিনী, আর তাঁর সাথেই ঘটল ‘মা মাটি মানুষের’ অপূর্ব মেলবন্ধন।


ভবানীপুর দুর্গোৎসব সমিতির গোটা প্যান্ডেল চত্বরটাই খেলার সরঞ্জাম দিয়ে সাজানো। মন্ডপ শিল্পী সৌমেন ঘোষ বলেছেন, ” খেলা হবে শ্লোগান ভারতবিখ্যাত। তাই আমরা এই থিমটাকেই বেছে নিলাম। শিশু ও যুবসম্প্রদায় যাতে ইনডোর গেমের বদলে আউটডোর গেমে আরও উৎসাহিত হয়ে ওঠে, সেকথা ভেবেই আমাদের এই প্রয়াস”।


বস্তুতই আজকের ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা ইনডোর অর্থাৎ মোবাইল গেমসের প্রতি বেশিমাত্রায় আসক্ত হয়ে পড়ছে। এই সময় এমন একটা থিম বেছে নিয়ে ভবানীপুর দুর্গোৎসব সমিতি তাদের সামাজিক দায়বদ্ধতাও দেখিয়েছেন।


এই সেই ভবানীপুর। ২০১১ সালে যে অঞ্চল থেকে জয়ী হয়ে মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসেছিলেন। কদিন আগে উপনির্বাচনে এই ভবানীপুরেই আরও একবার রেকর্ড ব্রেকিং সাফল্য।
‘খেলা হবে’ থিম দিয়ে সেই মমতাকেই স্মরণ করিয়ে দিল ভবানীপুরের এই পূজোকমিটি।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com