VoiceBharat News 0e15ef79725168095e67288965c72dc9 original

গড়িয়াহাটের কাঁকুলিয়া রোডে জোড়া খুনের তদন্ত করতে গিয়ে উঠে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা যাচ্ছে একাধিক ব্যক্তির হদিশ। নিউটাউনের বাসিন্দা ব্যক্তি ও তাঁর ড্রাইভার খুন হলেন গড়িয়াহাটে। কীভাবে হল এই খুন? কারাই বা যুক্ত এই খুনে, পরিচিত নাকি অচেনা কেউ? উঠে আসছে নানা প্রশ্ন।

VoiceBharat News New Project 8 1
খুনে নিহত সুবীর চাকী


নিউটাউন অঞ্চলের ‘নিউ ওয়র্ল্ড সিটি’ আবাসনে থাকতেন সুবীর চাকি। এক কর্পোরেট সংস্থার উচ্চপদস্থ কর্তা সুবীর বাবু ২০১০ সালে ফ্ল্যাট কিনে নিউটাউনে থাকতে শুরু করেন, সঙ্গে থাকতেন সুবীরবাবুর স্ত্রী ও শাশুড়ি। কিন্তু নিউটাউনের ধারে কাছে নয়, সুবীর বাবুকে খুন করা হল গড়িয়াহাট এলাকায়! সেখানে কী করতে এসেছিলেন তিনি?


জানা গেছে, গড়িয়াহাটের কাঁকুলিয়া রোডে রয়েছে তাঁদের পৈতৃক বাড়ি। বাড়িটিতে বাস করেননা কেউ। অনেকদিন ধরেই বাড়িটি বিক্রী করার পরিকল্পনা চলছিল। পুলিশের অনুমান সেই ব্যাপারে কথা বলতেই কাঁকুলিয়ার বাড়িতে এসেছিলেন সুবীর চাকী , সঙ্গে ছিলেন তাঁর গাড়ির ড্রাইভার রবীন মন্ডল। দু্জনেই বাড়ির ভেতর খুন হন। বাড়ির দোতলা ও তিনতলায় দুজনের রক্তাক্ত লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়।

VoiceBharat News 2
এই সেই গড়িয়াহাটের পৈতৃক বাড়ি


সুবীর বাবুর দুই ছেলে ও এক মেয়ে। তাদের একজন ঋদ্ধিমান, পেশায় ইঞ্জিনিয়ার, বিদেশেই থাকেন। পৈতৃক বাড়ি বিক্রী করার পরেই লন্ডনে ছেলের সাথে দেখা করতে যাওয়ার কথা ছিল। নিউটাউনে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে আবাসনে বেশ জনপ্রিয় ছিলেন সুবীর চাকি। সামাজিক উদ্যোগেও অংশ নিতেন। নিজের যোগাযোগ কাজে লাগিয়ে দু-দুবার তিনি আবাসনে কোভিড টিকাকরণের ক্যাম্প করেন। এই ধরনের সদালাপী হাসিখুশি মানুষের এই পরিণতি মানতে পারছেননা কেউ।


পুলিশি তদন্তে খুনের অস্ত্রের সন্ধান পাওয়া না গেলেও বালিশে রক্তের ছাপ দেখে জানা গেছে ধারালো কোনো অস্ত্র দিয়েই খুন হয়েছে, আর এই খুনের ধরণ দেখে অনুমান — খুনি সম্ভবত পেশাদার। খুনের সময় সুবীর বাবু ও তাঁর ড্রাইভারের সাথে আততায়ীর যে ধ্বস্তাধস্তি হয়েছে তারও প্রমাণ পাওয়া যায়।

VoiceBharat News police13 1634391395
জোরালো তদন্তে পুলিশ


সুবীরবাবুর স্ত্রী ও মা বলছেন বাড়ি বিক্রীর ব্যাপারেই নতুন কোনো পার্টির সাথে দেখা করতে গেছিলেন সুবীর বাবু। তবে কি বাড়ি বিক্রীর কথা বলার ছুতোনাতায় পরিকল্পিত ভাবেই ডেকে পাঠানো হয়েছিল তাঁকে?

সেই সন্দেহেই যারা যারা বাড়ি কিনতে চেয়েছিলেন তাদের নামের একটা লিস্ট তৈরি করেছে পুলিশ। সেই লিস্টে গড়িয়াহাট ও সল্টলেকের কিছু ব্রোকারের নামও রয়েছে। কয়েকজনকে ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করেছে লালবাজার। তাদের মধ্যে সন্দেহভাজন দুই মা-ছেলেকে ডায়মন্ডহারবার থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ওই ছেলেটিও জমি বাড়ির দালালি করত এবং সুবীর বাবুর সাথেও যোগাযোগ হয়েছিল বলে অনুমান। তদন্তে আরও জানা গেছে, কাঁকুলিয়া রোডের ওই বাড়িটির দাম দেড় কোটি ঠিক করেছিলেন সুবীর বাবু। দাম নিয়ে দর কষাকষি থেকে মতানৈক্যও চলছিল।


তার জেরেই কি খুন? সে কিনারা এখনও করতে পারা যায়নি। তবে জোরালো তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে লালবাজার দপ্তর।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com