Bangladesh India

১৯৭১ সালে বাংলাদেশ পাকিস্থান যুদ্ধের সময় বাংলাদেশ থেকে ভারতে আশ্রয় নেওয়া বাঙালীদের “বাঙাল” নামেই চেনেন সবাই , অপরদিকে স্থানীয় বাঙালীদের বলা হয় “ঘটি” এতো সবের মঝে সাবাই আমরা বাঙালী এই তত্বেই বিশ্বাস করে ভয়েস ভারত নিউস কর্তিপক্ষ ।

বাঙ্গালীরা ভ্রমন করতে অনেক বেশি পছন্দ করে, বাংলাদেশের বাঙালীরাও এর ব্যাতিক্রম নয় , কলেজ স্টিট এর এক বইয়ের দোকানে ভয়েস ভারতের সাংবাদিক উত্তম গুহর পরিচয় হয় একজন বাংলাদেশীর সাথে নাম মৃত্যুঞ্জয় কুমার , যে পুরো পশ্চিম বাংলা ঘুরে বাঙালীর এক অন্য রকম ঐতিহ্য উপভোগ করেছেন । তাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল ঘটি ও বাঙাল বাঙালীর বিবাজন তার চোখে কেমন? তার উত্তর ছিল এমনঃ

ভারতে এসে এক কথায় অসাধারন, বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গ । নিজের ভাষায় বিদেশ ঘুরছি দারুন লাগছে । এখানকার খাবার, আলো, বাতাস, সত্যি শরির ও মনের জন্য ঔষধের মত কাজ করে । তবে এখানে এসে যেটা শিখলাম সেটা হলো বাঙালী দুই প্রকার ঘটি ও বাঙাল এটা বেশ মজা লেগেছে । তবে আমার মনে হয়না এই বিভাজনের কোন দরকার আছে , আমাদের দেশেও অনেক জায়গার মানুষকে বরিশাইল্লা বা নোয়াখাইল্লা বলা হয় আমি এর পক্ষে নই কোন ভাবেই ।

কলকাতা
কলকাতা

১৯৭১ এ বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালিন সময় ভারত ১ কোটি বাঙালীকে আশ্রয় দিয়েছিল , যাতে তারা যুদ্ধ শেষ এ আবার দেশে ফিরে নতুন করে জিবন শুরু করতে পারে । অনেকে যুদ্ধো শেষে দেশে ফিরেছেন , অনেকেই এখানেই থেকে গেছেন । এখানে বাড়ি ঘর করেছেন আর এখন তারা বাংলাদেশের নাম খারাপ করছেন । যদি জিজ্ঞেস করেন কেন ফিরে যাননি? বলবে ওখানে আর কিছু নেই আমাদের, অথচ তারা এখানে সব করতে পেরেছেন ঠিকি বাড়ি গাড়ি ধন ইত্যাদি সবি করেছেন এখানে । রাগ করবেন না, কেন বললাম নাম খারাপ করছেন?

আমি এই পর্যন্ত প্রায় ১০ জন বাঙালের সাথে কথা বলেছি প্রায় প্রত্যেকেই বলেছেন তাদের জমিদারি ছিল বাংলাদেশে , তাদের পুকুর ভরা মাছ আর গোয়াল ভরা গরু ছিল । মুসলমানরা নাকি সব লুট করে নিয়ে গেছে । আমার প্রশ্ন হলো ১৯৭১ এর আগে যদি সবাই জমিদার ছিল এখন সেই জমিদারি গুলো কই? আর জমিদার বাড়ি গুলোই বা গেল কই ? নাকি তারা ইট গুলো খুলে খুলে খেয়ে নিয়েছে ? আর ওনাদের একটা ব্যাপারে বুঝতে ভুল আছে সেটা হলো ওনাদের যাই লুট হয়ে থাকুক তা করেছে পাকিস্থানীরা অথবা রাজাকারেরা , বাংলাদেশীরা নয় । আর তারা নিজেদের আজোও বাংলাদেশি বলে পরিচয় কিভাবে দিয়ে পারে? বাংলাদেশের আইডি কার্ড আছে ? এই দেখুন আমার মত পাসপোর্ট কি তাদের কাছে আছে? বাংলাদেশি দাবি তো আমি নিজেকে করতে পারি, এইযে এসেছি ভিসা ফুরালে সন্মানের সাথে দেশে চলে যাবো , হাতে টাকা জমলে আবার আসবো জল ফুসকা / পানিপুরি / মন্ডা মিঠাই খেয়ে আবার চলে যাবো ।

আপনাদের দেশের মন্ত্রী মিনিস্টারদের ও বোধয় আর একটু বুঝে কথা বলা উচিত , এন আর সি ইসুতে আমিত সাহ সাহেব বললেন, সব গুলোকে বাংলাদেশ পাঠিয়ে দেব । আমি খুব বেশি শিক্ষিত নই তবে এইটুক বুঝি, যাদের বাংলাদেশ পাঠাবেন বললেন কোন দলিলের ভিত্তিতে বাংলাদেশ পাঠাবেন ? পিপলস রিপাবলিক অব বাংলাদেশ লেখা কোন ডকুমেন্ট কি তাদের কাছে আছে? চায়না পাঠিয়ে দিন , তারা তো চাইনিস ও হতে পারে নাকি?

তারা এখানে আছে তাদের আপনারা কিভাবে দেখবেন আপনাদের ব্যাপার , আমার এ বিষয়ে মতামত দেওয়ার অধিকার নেই । যারা নিজেকে বাংলাদেশী বলছে আসলে তারা ইসলামিক রিপাবলিক অফ ইস্ট পাকিস্থান নামের একটা দেশ ছিল সেই দেশের প্রক্তন নাগরিক ।

বাংলাদেশের সাথে ভারতের সম্পর্ক খারাপ হয়ে গেছে , দুই দেশের মানুষের মধে একটা ভালোবাসা কয় বছর আগেও ছিল এখন আর তেমন কিছুই দেখিনা । কমেন্টে গালাগালি মারামারি করতে দেখি বাংলাদেশ ভারত নিয়ে । যাইহোক এগুলো আমি ব্যাক্তিগত ভাবে পছন্দ করিনা ।

ঘটিদের ব্যাপারে আমার কোন অভিযোগ নেই , তাদের কথাবার্তা আমার দারুন লাগে । আপনি যদি ঘটি হয়ে থাকেন তবে আপনাকে একটা কথা বলি? দাদা খেয়ে এসেছেন ? নাকি গিয়ে খাবেন? আরে আরে মজা করছি । এভাবেই ভালোবাসা বেচে থাকুক ।

By Nisha Das

Nisha Das, Publisher Of VoiceBharat News nisha@voicebharat.com