আমাদের Telegram এ ফলো করুন সবার আগে সর্বশেষ আপডেট পান Click Here

Google News এ ফলো করুন Click Here

জোট বাঁধছেন মোদী রাহুল মমতা : পূজোয় দেখা দেবেন একসাথে

Current India Economy Entertainment Features

মোদী মমতা রাহুল একসাথে এক ছাদের নিচে! রাজনৈতিক মঞ্চে অত খেয়োখেয়ি সম্পর্ক যাদের?  অসম্ভব, এ তো ভাবাই যায়না।

হ্যাঁ ঠিকই। এই অসম্ভবকেই সম্ভব করতে চলেছে ইস্ট বেলেঘাটা জনকল্যাণ সংঘের পূজো কমিটি। পূজো চলাকালীন ইস্ট বেলেঘাটা জনকল্যাণ সংঘের মঞ্চে থাকবেন এঁরা সবাই। থাকছেন বিমান বসু, জ্যোতি বসুও। সশরীরে নয়, এঁদের প্রত্যেকের আদলে তৈরি হচ্ছে কাঠের মূর্তি।
ভাবনা পরিকল্পনায় শিল্পী সমর সাহা। ২০০০এর মতো কাঠের পুতুল দিয়েই সেজে উঠছে  পূজো মন্ডপ।

শিল্পীরা এসেছেন পূর্ব বর্ধমান জেলার নতুন গ্রাম থেকে। কাঠের তৈরি হাতের কাজের জন্য নতুন গ্রাম বিখ্যাত।

এই মন্ডপ প্রস্তুতকারীরাও প্রত্যেকে ‘দারুশিল্পী'(দারু অর্থে কাঠ)। এই গ্রামের কুড়িটি পরিবার মিলে ৩ মাস ধরে অক্লান্ত পরিশ্রমে বেলেঘাটা জনকল্যাণ সংঘের পূজো মন্ডপ সাজিয়ে তুলেছেন। 

বিভিন্ন দলের রাজনৈতিক ব্যক্তিদের কাঠের মূর্তি তো তৈরি হচ্ছেই। তার সাথে ভাবনাতেও অভিনবত্ব রয়েছে। যেমন একটি মঞ্চে মনমোহন সিং ও সানিয়া গান্ধীর সাথে দাঁড়িয়ে বক্তৃতা দেবেন রাহুল। আর একটি মঞ্চে  জ্যোতি বসু ও বিমান বসুর সাথে সাজানো থাকছে প্রচুর বই। নরেন্দ্র মোদীর সাথে অমিত শাহ থাকছেন অপর এক মঞ্চে, সেখানে থাকছে রান্নার গ্যাস ও পেট্রোল পাম্প। অর্থাৎ এই দুই মূল্যবান উপকরণ তাঁদেরই হাতে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর  মঞ্চ সাজিয়ে তোলা হচ্ছে  উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলি দিয়ে।
শিল্পী সমর সাহা বলেছেন, এই মন্ডপের সুন্দর পরিকল্পনা আসলে জনসাধারণের জীবন ও জীবিকার সাথে জড়িত। ঠাকুর দেখতে এসে দর্শনার্থীরা সেগুলিও উপলব্ধি করতে পারবেন।

একটি মহৎ উদ্দেশ্যও রয়েছে এই পূজোর নেপথ্যে। একবছরেরও বেশি সময় ধরে চলা লকডাউনে কর্মহীন নতুন গ্রামের এই শিল্পীরা। করোনার কারণে মেলাও বন্ধ। ফলে রুটি রুজিু সংকট দেখা দিয়েছিল নতুন গ্রামের শিল্পীদের ঘরে।
এই কর্মহীন শিল্পীদের কিছুটা রোজগারের সুযোগ করে দিতেই বেলাঘাটা জনকল্যাণ সংঘের তরফ থেকে এই থিম পূজোর প্রস্তাব দেওয়া হয়। শিল্পীরাও সাগ্রহে এগিয়ে আসেন। নিজেদের পরিশ্রমে ও সৃজনশীল পরিকল্পনায় সমস্ত রাজনৈতিক ব্যক্তিদের নিয়ে এক আলাদা জগতই তৈরি করে ফেলেছেন, যা দেখতে পাওয়া যাবে আর কিছুদিন পরেই।
ক্লাবের পক্ষে জানানো হয়েছে এই মন্ডপ প্রস্তুতকারী শিল্পীরা পারিশ্রমিক তো পাবেনই, তার সাথে মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে পাওয়া ৫০ হাজার টাকাও তুলে দেওয়া হবে শিল্পীদের পরিবারের হাতে।