কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

Happiness

টাকাই একমাত্র অনন্দের উৎস নয়, জানাচ্ছে সমীক্ষা

Economy Features

টাকা দিয়ে সব কেনা যায়।গোটা দুনিয়াও জয় করা যায়।এমন হাজারও   সংলাপ বাংলা সিনেমায় শোনা যায়।অনেক মানুষ এর বিশ্বাস অর্থই একমাত্র আনন্দের উৎস।অর্থর থেকেও কিছু মানুষ যেমন আনন্দিত নয় আবার কম অর্থ থেকেও অনেকে আনন্দিত।  এক সমীক্ষা এমনই বলছে যে ,টাকাই যে  জীবনে আনন্দের কারণ তার কোনও মানে নেই। সমীক্ষায় এমন  অনেক অবাক করা বিষয় উঠে এসেছে। এমন অনেক জিনিস আছে যা কি না মানুষকে টাকার থেকেও বেশি আনন্দ দেয়।এমনই দাবী করছেন’গ্রেটার গু়ড সায়েন্স। 

সমীক্ষাও বলছে, টাকা থাকা মানেই জীবনে আনন্দ , খুশী থাকবে তা কিন্তু মোটেও নয়।সমীক্ষা বলছে এমন অনেক জিনিস গুলি মানুষকে অর্থের চেয়েও বেশি পরিমান আনন্দ প্রদান করে। এমনটাই দাবী করছে ‘গ্রেটার গু়ড সায়েন্স সেন্টার’ নামক গবেষণাকারী সংস্থার সমীক্ষাটি।সেই আনন্দের বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করা যাক।
এক – সুসম্পর্ক: একেবারে প্রথমে বলা যায় সুসম্পর্কের বিষয়টি।একটা সুন্দর সম্পর্ক খুব দামী অনেক দামী জিনিসের চেয়েও।যদি বৈবাহিক সম্পর্ক বা  প্রেমের  সম্পর্ক সুখের হয়,সুন্দর হয় তবে জীবনে আনন্দের মাত্রা দ্বিগুন ভাবে বেড়ে যায়।অর্থনৈতিক টানা পোড়েনও সেখানে খুব বেশী ছাপ ফেলতে পারে না। দক্ষিণ আমেরিকার অনেকগুলি দেশে সমীক্ষা চালিয়ে এই দাবীর  সপক্ষে বেশ কিছু উদাহরণ সামনে এসেছে। দেখা যায় শুধুমাত্র ভালবাসার কারণের জন‍্যই মানুষ অর্থের টানাপোড়েন এর  মধ্যেও বেশ আনন্দে জীবন অতিবাহিত করছে।  দুই – শরীরচর্চা:স্বাস্থ‍্যই সম্পদ।নিয়মিত শরীরচর্চা ফলে মনও ভাল থাকে।এর কারণ হল মন ভাল রাখার হরমোনগুলির ক্ষরণ বাড়ে।যার ফলে ভেরত থেকে একটা খুশী আনন্দ কাজ করে।এই ভাল থাকার পরিমাণকে কি টাকার অঙ্কে ব্যাখ্যা করা যায় কখনও?যায় না।সমীক্ষা এই প্রশ্নেরও উত্তরে বলেছে এক জন গড়পড়তা আমেরিকার নাগরিকের বার্ষিক বেতন ভারতীয় অঙ্কে ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বাড়তে পারে ঠিকই তাতে ব‍্যক্তিটি যতটা আনন্দ পান, রোজ শরীরচর্চা করার যে  আনন্দ হয় তার থেকেও কি বেশী?
 তিন – যাতায়াতের সময়: প্রথম দু’টি বিষয় পড়েই অবাক হতে পারেন অনেকেই। টাকার চেয়েও বেশি আনন্দ দেয় এই জিনিসগুলি এও সম্ভব।এবার   তৃতীয় বিষয়টি শুনে আরও আবাক হবেন যারা অর্থকেই তাঁদের জীবনের মূল মন্ত্র বলে মনে করেন।সমীক্ষাটি বলছে,কর্মক্ষেত্র থেকে যাতায়াতের সময় কমে গেলে, মানুষের মন ভাল হতে শুরু করে।আবার সময় বাড়লে ঠিক উল্টোটা ঘটে।সমীক্ষায় এটিকে একটি সংখ্যায় ব্যাখ্যা করেছে।কর্মক্ষেত্র থেকে যাতায়াতের সময় ২০ মিনিট বেড়ে গেলে মানুষের  বিরক্তি বেড়ে যায় ,তেমনি বিরক্তি লাগে বার্ষিক বেতন ১৯ শতাংশ কমে গেলে।চার – ভালোবাসা:নিঃস্বার্থ ভালোবাসতে যে আনন্দটা থাকে সেই আনন্দটা কখনই টাকার বিনিময়ে পাওয়া যায় না।ভালোবাসাকে টাকা দিয়ে কেনাও যায় না। আসল কথা হলো টাকা যে জীবনে আনন্দের একমাত্র উৎস  সেটা কিন্তু নয়,তা পরিসংখ্যানের মাধ্যমেই দেখিয়েছে সমীক্ষাটি।ছোট ছোট আনন্দ গুলিকে আমাদের চার পাশের কিছু মুহুর্ত থেকে সহজেই খুঁজে নেওয়া যায়। নিঃসন্দেহে অর্থনৈতিক উন্নতি হলে আনন্দ  তিনগুনও হয়ে থাকে ,কথাটাও মিথ‍্যে নয়। ছোট ছোট কিছু মুহুর্ত বা ক্ষুদ্র কিছু জিনিস যে আনন্দটা দেয় টাকা তা দিতে পারে না।বেশি আনন্দ,খুশী যে যে জিনিসগুলি দিতে পারে, সেই তালিকার টাকা নেই। সেটিই প্রমাণ করেছে এই সমীক্ষা।জীবনে টাকাও প্রয়োজন আছে ঠিকই,তবে টাকাই একমাত্র আনন্দের উপাদান হতে পারে না।

কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304