VoiceBharat News vijay rupani web

আগামী বছরেই গুজরাটের বিধানসভা নির্বাচন। তার ঠিক আগেই আচমকা পদত্যাগ করলেন গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি। কেন এই হঠাৎ পদত্যাগের সিদ্ধান্ত?

দেখা যাচ্ছে গত ২মাসে বিভিন্ন রাজ্যে মুখ্যপন্ত্রী পাল্টেছে বিজেপি। প্রথমে কর্ণাটক তারপর উত্তরাখন্ড, এবার যোগ হল আরও একটি রাজ্যের নাম গুজরাট। বিষয়টা রাজনৈতিক মহলের নজরে এসেছে। এই বদল কি নেহাতই মুখবাছাই? নাকি পেছনে রয়েছে গভীর কোনো তাৎপর্য!

VoiceBharat News pro

২০১৬ সালে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী হন বিজয় রূপানি। সেটাও তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী আনন্দীবেন প্যাটেলের পদত্যাগের পর। তখনও, ঠিক তার পরের বছরই ২০১৭ তে ছিল বিধানসভা নির্বাচন। যে ভোটে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন বিজয় রূপানি। এবারও সেই সময়কার মতোই পুনরাবৃত্তি ঘটতে দেখা যাচ্ছে।

একেবারে নির্বাচনের দোরগোড়ায় এসে মন্ত্রীর ঘুঁটি পাল্টে দেওয়ার এই চাল বিজেপির দাবার ছকে অভিনব। কিন্তু কেন এই স্ট্র্যাটেজি? প্রশ্ন জোরালো হচ্ছে ক্রমশ।

মোদী এবং অমিত শাহর কাছের লোক হিসেবে পরিচিত বিজয় রূপানি অবশ্য স্পষ্ট করে মুখ খোলেননি। দলের সিদ্ধান্তই তাঁর সিদ্ধান্ত এই বলে পাশ কাটিয়েছেন। পদত্যাগ করার কথা জানিয়ে তিনি বলেন,”দল আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছিল আমি সৈনিক হিসেবে তা পালন করেছি। এখন দল আমাকে সংগঠনের কাজে চাইছে। তাই এই সিদ্ধান্ত “।

সংগঠক হিসেবে কাজ করার জন্য মন্ত্রীত্বের পদ থেকে অপসারণ কতটা যুক্তিযুক্ত সেটা গেরুয়া শিবিরের অন্দরমহলের ব্যাপার। তবে যোগ্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নীতিনভাই প্যাটেলের নামটা যে সেই ২০১৭ থেকে উঠে আসছে, এবার যেন তারই পূর্বাভাস পাওয়া গেল।

VoiceBharat News IMG 20210911 174413

রাজনৈতিক আবহাওয়া সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছে। নীতিনভাইকে ক্ষমতার মুখ হিসেবে আনতেই কি বিজেপির এই আচমকা মন্ত্রীবদল? তাও ঠিক নির্বাচনের আগে?

২০১৬র কথা মনে করেই সম্ভবত বিজয় রূপানি মুখে কুলুপ এঁটেছেন।’ দলের সিদ্ধান্তই তাঁর সিদ্ধান্ত ‘, মানে দলের কথাই শেষ কথা। কম্যান্ডের সামনে অনুগত সৈনিকের হাত পা বাঁধা — পরোক্ষভাবে সেটাই বোঝাচ্ছে না কি!

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com