parliament

বেশ কয়েকদিন ধরেই দেশভরে কথা উটছে পেগাসাস-কাণ্ড নিয়ে । মূলত এই বিষয় নিয়েই বক্তৃতা দিচ্ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব আর তখনি ঘটে যায় এমন কান্ড।

গতকাল বৃহস্পতিবার ২২ জুলাই নয়াদিল্লিতে সাংসদ ভবনে ঘটেছে এই কান্ড টি। অভিযোগ ওঠে তৃণমূল সাংসদেরা কেন্দ্রীয় নেতা অশ্বিনী বৈষ্ণবের সাথে অভদ্র আচারন করেন। ঘটনা টি শুরু হয় কেন্দ্রিয়মন্ত্রী আশ্বিনী বৈষ্ণবের বক্তৃতার কাগজ ছেঁড়া কে কেন্দ্র করে। দেশের মধ্যে যখন পেগাসাস-কাণ্ড নিয়ে উত্তাল তখন এর প্রতিক্রিয়াও দেখ গেল সংসদের মধ্যে।

গত বৃহস্পতিবার সাংসদ বাদল অধিবেশনের তৃতীয় দিন ছিল এর মধেই ভারতের তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী উঠেছিলেন এই পেগাসাস ইস্যু নিয়ে কথা বলার জন্য। ঠিক তখনি রাজ্যশভায় শুরু হয় হট্টগোল। দৈনিক ভাস্করের অফিসে আয়কর হানার প্রতিবাদে ওয়েলে নেমে পড়েন বিরোধি দলের নেতারা সেই সময় পেগাসাস নিয়ে বক্তৃতা দিচ্ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতা অশ্বিনী বৈষ্ণব।

Ashwini Vaishnaw

অভি্যোগ ওঠে তৃণমূলের সাংসদ হঠাৎ করেই চলে যান তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রীর কাছে এবং তার হাত থেকে বক্তৃতার কাগজ টি নিয়ে তা ছিড়ে ফেলেদেন চেয়ারম্যানের দিকে তাঁক করে। এরকম পেশাদারহীন আচরণ দেখানোর কারোনে বিজেপি দলের সাংসদেরাও চড়াও হয় তাদের উপর।

এই ব্যাপারে পাল্টা অভিযোগ করেন তৃণমূলের সংসদরা। তারা জানান তাদের সাথে দুর্ব্যবহার করা হয়েছে তৃণমূলের সাংসদ শান্তনু সেনের সাথে দুর্ব্যবহার করেন বিজেপির কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী। তিনি জানান সভা স্থগিত হওয়ার পর তাকে হঠাৎ করে অভদ্র ভাবে ডাকেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী। সেখানে যাওয়ার পর তাকে অশ্রাব্য ভাষায় গালি গালাচ করেন এমন কি হুমকি পর্যন্ত দেন হরদীপ।

Hardeep Singh Puri

শান্তনু সাংবাদিক দের বলেন, তারা সবাই মিলে একভাবে আমাকে ঘিরে ফেলেছিল। আমার যারা সহকর্মী আছেন তারা আমাকে দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন সেখান থেকে।

ইতি মধ্যে জানা গেছে চ্যেয়ারমেনের কাছে তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেনের বিরুদ্ধে সাস্পেন্ডের আর্জি জানায় বিজেপি সরকার।এবং এই ঘটনা কে কেন্দ্র করে তৃণমূলের বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের আরোপ করেন বিজেপি সরকার।

Shantanu Sen

তবে কারো স্বাধিকার ভঙ্গকরা বা কাউকে গালিগালাচ অথবা হুমকি দেওয়া দুই দলেরই মূর্খতার পরিচয়।

By Nisha Das

Nisha Das, Publisher Of VoiceBharat News nisha@voicebharat.com