কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

দিল্লীতে গোপন সুড়ঙ্গ কার ষড়যন্ত্রে!

Current India Features Politics

চমকাচ্ছেন? লালবাজারও চমকেছে।
আজ একটি ইলেকট্রনিক মিডিয়া মারফত হঠাৎ খবর আসে দিল্লীর বিধানসভায় একটি গোপন সুড়ঙ্গ খুঁজে পাওয়া গেছে, যেটি লালকেল্লা পর্যন্ত বিস্তৃত।


পশ্চিমবঙ্গে আচমকা এমন খবর ছড়ালে অনেকেরই মমতা ব্যানার্জীর নাম সবার আগে মনে হতে পারে। তবে লালবাজার আশ্বস্ত হয়েছে যখন, আপনিও হন। না, এতদিন প্রকাশ্যে না এলেও সুড়ঙ্গটি আজকের তৈরি নয়।

কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304


দিল্লী বিধানসভার অধ্যক্ষ রামনিবাস গোয়েল জানিয়েছেন “এই গোপন সুড়ঙ্গ বিধানসভা থেকে লালকেল্লা পর্যন্ত বিস্তৃত। স্বাধীনতা সংগ্রামী বন্দীদের গোপনে আদালতে পাঠানো হত  এই পথ দিয়েই”।
১৯১২ সালে ব্রিটিশরে ভারতের রাজধানী কলকাতা থেকে দিল্লীতে স্থানান্তরিত করে। ১৯২৬ সালে বিধানভার এই কক্ষটি আদালত হিসেবে ব্যবহার করা শুরু হয়।


স্বাধীনতার এতগুলো বছরেও সুড়ঙ্গটি আবিষ্কৃত হয়নি ভাবতে অবাক লাগে! এ বিষয়ে বিধানসভার অধ্যক্ষই বলেন,” বিধানসভায় কোনো একটি ঘরে রাজ বন্দীদের ফাঁসি হত বলে জানতাম। সুড়ঙ্গ আছে বলেও শুনেছি। কখনও এই ঘর খুলে দেখা হয়নি। স্বাধীনতার ৭৫ বছর পর আজ ইতিহাসের সাথে জড়িত এই সুড়ঙ্গ দেখে বিস্ময় জাগছে”!


সুড়ঙ্গর কাঠামোটি সুরক্ষিত এবং আগের মতো থাকলেও দীর্ঘদিন অপব্যবহারের এবং মেট্রো নির্মান কাজের জন্য ভেতরের যাওয়ার পথ নষ্ট হয়েছে বলেই অনুমান। সম্ভাব্য মেরামত এবং পুনর্গঠন করে এই সুড়ঙ্গকে স্বাধীনতা সংগ্রামী যোদ্ধাদের স্মৃতিরক্ষার্থেই সংরক্ষণ করা হবে। পর্যটকদের দেখার জন্য একটি সংগ্রহশালা তৈরির পরিকল্পনার কথাও অধ্যক্ষ শ্রী গোয়েল জানান। 
এই সুড়ঙ্গ আবিষ্কার এসময়ে দাঁড়িয়ে ইতিহাসের পাতায় আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ সংযোজন, এমন বলা যেতেই পারে।