কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

নিজের বইতে উগ্র হিন্দুত্ববাদের সমালোচনা, আগুনে পুড়ল সলমন খুরশিদের বাড়ি

Current India Features Politics

সম্প্রতি নিজের লেখা বই Sunrise Over Ayodhya: Nationwood in Our Times-এ উগ্র হিন্দুত্ববাদের সমালোচনা করেছেন কংগ্রেসের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সলমন খুরশিদ। যার জেরে আগুন লাগানো হল তাঁর নৈনিতালের বাড়িতে।


নিজের লেখা ওই বইটিতে সলমন হিন্দু ধর্ম এবং উগ্র হিন্দুত্ববাদের মধ্যে একটি সমান্তরাল পার্থক্য তৈরি করেছেন। মূল হিন্দু ধর্মীয় সংস্কৃতি যে কখনোই উগ্র হিন্দুত্ববাদ নয় এটাই বোঝাতে চান তিনি। বইটির এক জায়গায় তিনি বলেছেন, “সনাতন ধর্ম এবং ধ্রুপদী হিন্দু ধর্ম উগ্র হিন্দুত্ববাদের দ্বারা আক্রান্ত। উগ্র হিন্দুত্ব সবদিক থেকেই বোকো হারাম বা আইসিস-এর মতো উগ্র জেহাদি সংগঠনের সমার্থক “।

কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304
সলমন খুরশিদ


বইয়ের এমনই কিছু উক্তি ঘিরে তীব্র আপত্তি তুলেছে বিজেপি। তাদের মতে খুরশিদের এই মন্তব্য হিন্দুধর্মের ভাবাবেগে সরাসরি আঘাত। মুসলিম ভোট টানার জন্য পরোক্ষে এটা কংগ্রেসেরই প্ররোচনা এমন অভিযোগও তুলেছে বিজেপি।


মুসলিমদের সাথে হিন্দুত্ববাদের তুলনা টানার জেরে সলমন খুরশিদের বাড়ি ভাঙচুর করে আগুন লাগিয়ে দেয় একদল দুষ্কৃতী। এদের হাতে গেরুয়া পতাকা দৃশ্যমান ও জয় শ্রীরাম শ্লোগানও শোনা গেছে। দাউ দাউ জ্বলা অবস্থাতেই নিজের বাড়ির ছবি ও ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে দিয়েছেন খুরশিদ। এই চিত্র দেখিয়েই তিনি প্রশ্ন করেছেন, “এখনও কি আমি ভুল বলছি যে, এটা হিন্দুত্ববাদ হতে পারেনা?”

Facebook link is given below

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=429580648534275&id=100044470298070


প্রাক্তন মন্ত্রী তথা “Sunrise Over Ayodhya…” বইয়ের লেখক সলমন খুরশিদের সমর্থনে দাঁড়িয়ে রাহুল গান্ধী বলেছেন — “হিন্দু ধর্মকে কখনোই আঘাত করেননি খুরশিদ। ‘হিন্দু ধর্ম’ আর ‘হিন্দুত্ব’ এই দুইয়ের তফাৎ বুঝতে হবে”।


বাস্তবিকই, উগ্র হিন্দুত্ব আর উগ্র মুসলিম জঙ্গি সংগঠন যে একই পথের অনুসারী এটাই বলতে চান সলমন। পশ্চিমি শিক্ষা সংস্কৃতির বিরোধী আল কায়েদার সমতুল উত্তর-পূর্ব নাইজেরিয়ার জঙ্গি সংগঠন’বোকো হারাম’ এবং ‘আইসিস’ ( ইসলামিক স্টেট অফ ইরাক অ্যান্ড সিরিয়া) — এদের কার্যকলাপ ও উদ্দেশ্য এবং উগ্র হিন্দুত্ববাদীদের কার্যকলাপ যে অভিন্ন, পাশাপাশি মূল সনাতন হিন্দুধর্ম ও হিন্দুত্ববাদ যে পরস্পরের পরিপন্থী সেটাই বলতে চেয়েছেন তিনি।


সংবাদমাধ্যম এএনআইকে তিনি জানান, “এই ধরনের ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তারা হিন্দু ধর্মাবলম্বী নয়। বইতেও সেটাই বলার চেষ্টা করেছি। হিন্দু ধর্ম খুবই সুন্দর। এই ধর্ম দেশকে একটা সুন্দর সংস্কৃতি দান করেছে। এর জন্য আমি গর্বিত। এই আঘাত আমার ওপর নয় হিন্দু ধর্মের ওপর করা হয়েছে”।


এই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছেন শশী থারুর। ট্যুইট করে কংগ্রেস নেতা লিখেছেন, “এটা অসম্মানজনক। সলমন খুরশিদ একজন রাষ্ট্রনায়ক, যিনি আন্তর্জাতিক ফোরামে ভারতকে গর্বিত করেছেন। ক্ষমতায় যাঁরা রয়েছেন তাঁদের উচিত রাজনীতিতে এই অসহিষ্ণুতার নিন্দা করা”।


লেখক ও প্রবীণ নেতার বাড়িতে সন্ত্রাস চালানো ও আগুন লাগানোর অপরাধে রাকেশ কপিল সহ ২০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ডিআইজি নীলেশ আনন্দ জানিয়েছেন, দোষীদের কঠিন শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।