আমাদের Telegram এ ফলো করুন সবার আগে সর্বশেষ আপডেট পান Click Here

Google News এ ফলো করুন Click Here

পূজোর খাস মেজাজেই একডালিয়া থেকে সিংহীপার্ক

Current India Entertainment Features

স্বাস্থ্যবিধি, প্রশাসনিক তৎপরতা রয়েছে সবই। গতবারের তুলনায় কোভিড পরিস্থিতি কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণে। তাই
স্বাভাবিক ভাবেই মানুষ এবার অনেকটাই বাঁধনছাড়া। রাশ মানছেনা আনন্দ। সেই চিত্রই ধরা দিল দক্ষিণ কলকাতার দুর্গাপূজোর অন্যতম এক প্রাণকেন্দ্র গড়িয়াহাটে।


সেই বিখ্যাত একডালিয়া এভারগ্রীন ক্লাবের পূজো আবারও স্বমহীমায় উজ্জ্বল। নির্দিষ্ট কোনো থিম অনুসরণ না করলেও প্রতিবারের মতোই সুচারু শিল্পকার্যের ঐতিহ্যের সাথে মিশে রয়েছে ফিউশন। আলো ঝলমলে মান্ডিভিলা গার্ডেনে রূপোলি সজ্জায় দূর থেকেই নজর কেড়ে নেবে মন্ডপ। কিছুটা প্যাগোডার আদলে তৈরি মন্ডপে ধ্যানমগ্ন বুদ্ধের চিত্রলিপি। প্রচুর ভিড় থাকলেও গতবারের মতোই এবারও প্রতিমা দর্শন করতে হচ্ছে বাইরে থেকেই।


এরপর বাঁদিকে ঘুরলেই ফাল্গুনী সংঘের পূজো। গোটা মন্ডপটাই কুলোর আদলে তৈরি, আর তাতে বেতের বোনা অসংখ্য কুলো দিয়ে করা শিল্পকাজ আপনাকে পুরোনো সেই দিনে আরও একবার ফিরিয়ে নিয়ে যাবে।


এরপরেই যে নামটা ধারাবাহিক ভাবেই আসে সেটা তো সবারই জানা। হ্যাঁ ঠিকই ধরেছেন — ওইপারে সিংহী পার্ক।গড়িয়াহাট ফ্লাইওভারের নিচ দিয়ে ভিড়ের স্রোতে বাঁশের ব্যারিকেড টপকে সাপের মতোই এঁকেবেঁকে তবেই যেতে হবে সিংহী পার্কের পূজো প্রাঙ্গনে। এখানে তাই প্রশাসনিক তৎপরতাও বেশি। পুলিশ ভলান্টিয়ার বারবার মনে করিয়ে দেবেন, এবং আপনারাও নিজেরা স্মরণে রাখুন —” মাস্ক পড়ুন, সুরক্ষিত থাকুন”


সিংহী পার্কের মন্ডপ নিজেই হয়ে উঠেছে অক্সিজেনের উৎস। এটাই এবারের থিম। একটা বাড়ি, আসলে একটা পৃথিবী আর তাকে ঘিরে ধাপে ধাপে সবুজ গাছ আর পাখি, আরও ওপরে থাকে থাকে অক্সিজেন সিলিন্ডার।  গাছই অক্সিজেনের উৎস– মনে করিয়ে দেবে সিংহী পার্ক। দূর থেকে দেখা প্রতিমায় চোখ জুড়োবে চিরাচরিত ডাকের সাজ।


সব মিলিয়ে অনেকদিন পর গড়িয়াহাট ও মান্ডিভিলা চত্বরের দুর্গাপুজো আবার নতুন করেই ধরা দিল তার নিজস্ব মেজাজে।