কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

প্রথমে সৌজন্য, পরক্ষণেই আক্রমণ : ভবানীপুরে প্রাক্তন বিজেপির সাথে মুখোমুখি প্রিয়াঙ্কা

Current India Features Politics

সেই প্রথম দিন থেকে প্রিয়াঙ্কা প্রচারে বের হলেই একটা না একটা গন্ডগোল বেধেই যাচ্ছে।
আজ বুধবার প্রচারে বেরিয়ে আর এক নতুন সংকটে পড়ে গেলেন বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেয়াল। ৭০ নম্বর ওয়ার্ডে প্রচারের সময় হঠাৎ তিনি তৃণমূলের অসীম বসুর মুখোমুখি।

অসীম বসু ৭০ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কংগ্রেসের কোঅর্ডিনেটর। আগে ছিলেন বিজেপিতে। ফলে প্রিয়াঙ্কাকে চিনতেন আগে থেকেই। আজ সকালে প্রচারকালীন সেই পরিচিত প্রিয়াঙ্কা – অসীম আচমকাই পরস্পরের মুখোমুখি।

কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

এ যেন ভোটযুদ্ধে আশচর্য এক ধর্মসংকট! কী করেন প্রিয়াঙ্কা তখন!  অসীমই বা কী করতে পারেন এমন অদ্ভুত পরিস্থিতিতে!  প্রাথমিক সৌজন্য বোধ থেকে দুজনেই একে অপরের দিকে তাকিয়ে হেসে ফেলেন। পুরোনো অভ্যাস যে! দল বদলালেই কি আর সম্পর্ক বদলে যায়?


অসীম বসু বাইক সাইড করিয়ে রাখার পর প্রিয়াঙ্কার সাথে কিছু কথা হয়। ভালোমন্দ খবর বিনিময়।
সেটা খুব স্বাভাবিক ভাবেই জনসাধারণ এবং সংবাদমাধ্যমের নজর এড়াতে পারেনি। ফলে  দুপক্ষকেই প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়। এরপরেই গোটা ব্যাপারটার চেহারা বদলে যায়। পরস্পরের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠেন দুজনেই।


প্রিয়াঙ্কাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি অসীম বসুর দিকে বাঁকা ইঙ্গিত করে বলেন,”বাবাইদাকে তো আগে থেকেই চিনি। বিজেপিতেই ছিলেন। বিজেপির টিকিটে জিতেই টাকা উপার্জনের জন্য তৃণমূলে নাম লেখান।  যিনি জামাকাপড়ের মতো দল বদল করেন, তার সম্পর্কে মানুষের ধারণা আর কী হতে পারে?”


প্রসঙ্গত, অসীম বসুর ডাকনাম বাবাই। ডাকনামেই ডাকার মতো ভাই বোন সুলভ সম্পর্ক যাদের, রাজনীতির মঞ্চে এসে দলবদলের খেলায় তারাই রঙ বদলে পরস্পরের শত্রু!


অসীম বসুও পাল্টা দিলেন। প্রিয়াঙ্কা টিব্রেয়ালের সাথে পরিচিত সৌজন্য নিমেষে গুলিয়ে বিজেপির নীতিকে আক্রমণ করে বললেন,”মানুষ জানতে চাইছে পেট্রোল ডিজেল গ্যাসের দাম কবে কমবে? গোটা দেশের মানুষের নাভিশ্বাস উঠছে। এরপরেও উনি ভোট চাইতে এসেছেন কীকরে? উনি ভবানীপুরে ঘুরতে এসেছেন, ঘোরা হয়ে গেলে চলে যান”!
এভাবেই আজ বিষিয়ে উঠল দুই রাজনীতিকের পারস্পরিক সম্পর্ক,  তার সাক্ষী হলেন ভবানীপুরবাসী।