images (93)

মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠক করে প্রিয়াঙ্কা গান্ধি জানিয়েছিলেন যে,আগামী বছর ২০২২ সালে উত্তর প্রদেশ নির্বাচনে কংগ্ৰেস চল্লিশ শতাংশ মহিলা প্রার্থী দেবে।উত্তর প্রদেশে কংগ্রেসের প্রার্থী তালিকায় কংগ্ৰেস মহিলাদের জন‍্য চল্লিশ শতাংশ আসন সংরক্ষিত রাখবে।


মঙ্গলবার প্রিয়াঙ্কা গান্ধি এমনই ঘোষণা করেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধি৷ কংগ্রেসের এই ঘোষণার পর তৃণমূলর কুণাল ঘোষ ট‍্যুইট করে জানান ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলই প্রথমবার চল্লিশ শতাংশ আসনে মহিলা প্রার্থী দিয়েছিল। কংগ্রেসের পক্ষ থেকে প্রিয়াঙ্কা গান্ধির ঘোষনার পর কটাক্ষ করে ট্যুইট করেন কুনাণ ঘোষ।
মঙ্গলবার প্রিয়াঙ্কা গান্ধি সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন,২০২২ সালে উত্তর প্রদেশ নির্বাচনে কংগ্ৰেস চল্লিশ শতাংশ মহিলা প্রার্থী দিতে চলেছে। মহিলাদের ক্ষমতায়ণের জন্য কংগ্রেসেরএই সিদ্ধান্ত৷ কংগ্রেসের এই রূপ ঘোষণা থেকেই স্পষ্ট, উত্তর প্রদেশের সাড়ে ছ’ কোটিরও বেশি মহিলা ভোটারের মন জয় করা এবং মহিলাদের বিপুল অংশ ভোট পাওয়াই লক্ষ‍্য কংগ্ৰেসের।
এদিকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে কুণাল ঘোষ জানিয়েছেন এই রাজনৈতিক টালমাটাল পরিস্থিতিতে একমাত্র কংগ্রেস তৃণমূলকে অনুকরণ করে চলার চেষ্টা করছে। এই চেষ্টার মধ্যে আন্তরিকতা আছে যা কংগ্ৰেসকে এগিয়ে যেতে সাহায‍্য করবে।শুধু উত্তর প্রদেশ নয়,কংগ্ৰেস সমস্ত রাজ্যেই এই নীতি চালু করতে পারে।
এক মাসের অধিক সময় ধরে তৃণমূল এবং কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বের কথাবার্তা চলছে।


বিজেপি বিরোধী জোট হলে মমতা ব‍্যানার্জীর সরকার কংগ্রেসের শর্ত মানে নেবে সেটাও স্পষ্ট জানানো হয়েছে৷ তবে দুই পক্ষের সম্পর্কে উন্নতি হচ্ছেই না বরং কথার লড়াই চলছে।