Kailash-Vijayvargiya-in-BJP-Bengal

বিজেপির জাতীয় কর্মসমিতি-সহ একাধিক সাংগঠনিক দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের নামের তালিকা প্রকাশ করল বিজেপি। তাতে বাংলা থেকে বহু নেতা জায়গা পেলেন । যাদের মধ্যে রয়েছেন মিঠুন চক্রবর্তী। মহাগুরু ছাড়াও সদস্য করা হয়েছে দীনেশ ত্রিবেদী, স্বপন দাশগুপ্ত, ভারতী ঘোষকে।

দিলীপ ঘোষকে পূর্বে সর্বভারতীয় সহ সভাপতি করা হয়। এদিন তালিকায় তাঁর নাম রয়েছে। জাতীয় কর্মসমিতিতে চমক হিসেবে আমন্ত্রিত রাখা হয়েছে বেসুরো রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে। বিধানসভা ভোটের পর থেকে রাজীব বারবার বার্তা দিয়ে স্পষ্ট করেছে তিনি তৃণমূলে ফিরতে চাইছেন। এর মাঝে তাঁর কুণাল ঘোষের বাড়িতে চলে যাওয়া কিংবা ক্যামাক স্ট্রিটে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অফিসে দেখা করার ঘটনা জল্পনা বাড়িয়েছিল। তা ছাড়া সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক কথা বলার বিরুদ্ধে নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকে টিপ্পনি করেন টুইটে।

বিজেপি

অনেকের মতে, জাতীয় কর্মসমিতিতে রাজীবকে আমন্ত্রিত সদস্য রেখে বিজেপি আসলে তাঁকে রাখার চেষ্টা করল। বার্তা হলো , দলে তাঁর গুরুত্ব রয়েছে। তবে এসব দিয়ে রাজীবকে ধরা যাবে কি না এখন সেটা প্রশ্ন। জাতীয় কর্মসমিতিতে আমন্ত্রিতদের তালিকায় রাজীব ছাড়াও আছেন জলপাইগুড়ির সাংসদ জয়ন্ত রায়, দেবশ্রী চৌধুরী, রূপা গঙ্গোপাধ্যায়। কেন্দ্রীয় সম্পাদক পদে যেমন বাংলা থেকে রয়েছেন অনুপম হাজরা , কেন্দ্রীয় মুখপাত্রদের তালিকায় তেমনি নাম রয়েছে সাংসদ রাজু বিস্টের। গোটা তালিকায় দেখা যাচ্ছে, অন্য দল থেকে আসা নেতাদের গুরুত্ব দিয়েছে বিজেপি। তৃণমূল থেকে আসা মিঠুন, রাজীব, দীনেশদের পাশাপাশি ভারতী ঘোষও ছিলেন তৃণমূল দলে। মধ্যপ্রদেশ থেকে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া, তামিলনাড়ুর খুশবু সুন্দরকে একভাবে জাতীয় কর্মসমিতিতে জায়গা দিয়েছে বিজেপি।