কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা ও রাজ্য সভাপতি সুকান্তর বিরুদ্ধে মামলা করল পুলিশ

Current India Features Politics

মৃতদেহ নিয়ে কালীঘাটে বিক্ষোভের জেরে বৃস্পতিবার উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। ওই বিক্ষোভের প্রথম সারিতে ছিলেন বিজেপির নব্য রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, ভবীনীপুরের বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেয়াল সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারী সমস্ত নেতার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করল কালীঘাট থানার পুলিশ।

মে মাসে বিধানসভা ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর মগরাহাটের বিজেপি নেতা মানস সাহার ওপর হামলা হয়। মাথায় গুরুতর চোট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে সুস্থও হয়ে যান। ফেরার পর আবার শরীর খারাপ হতেই পুনরায় হাসপাতালে ভর্তি করতে হয় মানস সাহাকে। হাসপাতালেই মৃত্যু হয় তাঁর।

কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

মৃত মানস সাহার দেহ মগরাহাট থেকে কলকাতায় নিয়ে আসার ব্যবস্থা করে বিজপি কর্মীরা। এবং ওই মৃতদেহ সঙ্গে নিয়েই বৃহহস্পতিবার সন্ধে নাগাদ বিজেপির বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। লক্ষ্য হরিশ চ্যাটার্জী স্ট্রীট — মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর বাড়ি।


মরদেহ নিয়ে মিছিল মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির রাস্তায় ঢোকার মুখে পুলিশ বাধা দেওয়ায় তুমুল সংঘর্ষ বেধে যায়। এলাকা পর্যন্ত অশান্ত হয়ে ওঠে। বহু চেষ্টায় শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।
বিক্ষোভকারী বিজেপি নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে আইপিসির ১৪৫, ১৪৩, ১৪৭ সহ একাধিক ধারায় মামলে দায়ের করে কলকাতা পুলিশ।


আইন অমান্যকারী নেতাদের শীর্ষ স্থানেই রয়েছে সুকান্ত মজুমদার ও প্রিয়াঙ্কা টিব্রেয়ালের নাম।
উপনির্বাচন সামনেই। বিজেপির প্রার্থী হয়ে ভবানীপুরে মমতা ব্যানার্জীর বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছেন প্রিয়াঙ্কা। সুকান্ত মজুমদারও সদ্য দুদিন হল রাজ্যসভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন।
দুজনের ক্ষেত্রেইছপশ্চিম বাংলায় ‘ফ্রেশ ইমেজ’ রয়েছে বলা যায়। এদিনের আইনভঙ্গের বিরুদ্ধে পুলিশের করা কেসের ফলে সেই ইমেজ কিছুটা হলেও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলেই রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছেন।