IMG_20211203_000426

সরকারি অফিসের দরকারি কাগজ খেয়ে ফেলল একটা ছাগল। ছাগলটা যথেষ্ট সময় নিয়ে রীতিমতো পরীক্ষা করে একটা ফাইল বেছে নেয়, কে জানে তা কোন কেসের দরকারি কাগজপত্র সম্বলিত ফাইল! ছাগলের কাছে খাওয়ার উপযোগী মনে হয়েছে, তাই সে খাবে, এটাই তো স্বাভাবিক। বাংলায় এক বহু পুরোনো প্রবাদ আছে — পাগলে কি না বলে, আর ছাগলে কি না খায়। কিন্তু ছাগল যে গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ফাইলও খেয়ে ফেলতে পারে সেটা সম্ভবত দেশবাসীর জানা ছিলনা। উত্তরপ্রদেশে ঠিক তাই ঘটল! এমন একটি কান্ড ঘটিয়ে সেই ছাগল এখন নেটদুনিয়ায় রীতিমতো ভাইরাল।


উত্তরপ্রদেশের কানপুরে একটি ব্লক অফিসে সকালবেলার ঘটনা। শীত শীত আমেজ এসেছে। সামনেই জমিতে সকালের উষ্ণ নরম রোদ্দুর। তাই অফিসের ঘর খুলে ব্যাগট্যাগ নামিয়ে রেখে রোদ্দুর ঘেরা জমিটায় দাঁড়িয়ে গল্প জমিয়ে তুলেছিলেন সরকারি কর্মীরা।

সেই গল্পের ফাঁকেই কখন এক ছাগল এসে বেছে নিল নিজের পছন্দমতো একটি গুরুত্বপূর্ণ ফাইল, আয়েস করে চিবোতে চিবোতেই দিল ছুট!


গল্পটল্প ভুলে ব্লক অফিসের কর্মীরাও ছাগলটার পেছনে দিল পরিত্রাহি দৌড়, নাহলে যে চাকরি চলে যাবে!
ছোটাছুটি করে ছাগলকে পাকড়াও করলেও ততক্ষণে ফাইলের অর্ধেক চিবিয়ে শেষ করে দিয়েছে ওই কাগজলোভী ছাগলটা!


সরকারি কর্মচারীদের কাজে ঢিলেমি নিয়ে সাধারণ লোকের মনে কিছু বিরূপ ধারণা এদেশে এমনিতেই প্রচলিত আছে। হাসিমজার পাশাপাশি এদিনের ঘটনার ভিডিও নেটমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ায় আরো একবার সেই কাজে অবহেলা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়ে গেল। এর জন্য অবশ্য ব্লক অফিসের কর্মীরা ছাগলটাকেই দায়ী করেছেন।
ভিটেতে ঘুঘু চড়ানোর চলতি প্রবাদ আছে গ্রামেগঞ্জে, এবার সরকারি অফিসে ছাগল ঢুকিয়ে দেওয়া নিয়েও প্রবচন তৈরি হবে নাকি!

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com