আমাদের Telegram এ ফলো করুন সবার আগে সর্বশেষ আপডেট পান Click Here

Google News এ ফলো করুন Click Here

ভবানীপুর বাদে বাকি দুই কেন্দ্রে ৯২ হাজারের ওপর ভোটে জয় তৃণমূলের

Current India Features Politics

জঙ্গিপুর এবং শমসেরগঞ্জ মুর্শিদাবাদ জেলার দুই আসনে বহু ব্যবধানে জিতল তৃণমূল। তৃণমূল প্রার্থী তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী জাকির হোসেন জঙ্গিপুর কেন্দ্র থেকে জেতেন ৯২ হাজার ৩৬৫ ভোটে। শমসেরগঞ্জ থেকে অপর তৃণমূল প্রার্থী আমিরুল ইসলাম জিতেছেন ২৬ হাজার ১১১ ভোটে। দুই প্রার্থী পরপর দুবার জিতলেন ওই আসন দু’টিতে।

মুর্শিদাবাদ জেলার মোট ২২টি বিধানসভা আসনের মধ্যে এখন ২০টি তৃণমূলের দখলে।

বিধানসভা ভোটের আগে শমসেরগঞ্জে কংগ্রেস প্রার্থী মারা যান। এর ফলে ওই কেন্দ্রে ভোট হয়নি। জঙ্গিপুর কেন্দ্রে বাম প্রার্থীর মৃত্যুর ফলে ভোট বন্ধ হয়। ২০১৬ সালে প্রথম ওই কেন্দ্র জিতে নেন জাকির। এ বারও তাই হলো। আগের বার ২০ হাজারের মতো ভোটে জিতলেও এ বার বেড়েছে সাড়ে চার গুণ। জাকির বিজেপি প্রার্থীর থেকে ৯২ হাজার ৩৬৫টি ভোট বেশি পান। জাকির পেয়েছেন মোট এক লক্ষ ৩৫ হাজার ৯৮৫টি ভোট যেখানে বিজেপি প্রার্থীর ভোট ৪৩ হাজার ৬২০। জাকির বলছেন, ”এই রায় জনগণ দিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে মানুষ বিশ্বাস রেখেছেন। আমরা সকলে মিলে চেষ্টা করেছি তার ফল এটা।”

জঙ্গিপুরে জাকিরের কাছে ম্লান বিজেপি। পরাজিত বিজেপি প্রার্থী সুজিত বলেন, ”তৃণমূল বুথ দখল করে। যাঁরা আমাদের ভোট দিয়েছেন তাঁরা অন্তত অর্থ এবং পেশিশক্তির কাছে বিক্রি হননি।” ভোট চলাকালীন নৌকায় চড়ে গান গাইতে দেখা যায় বিজেপি প্রার্থীকে। তাঁর দাবি, ”বেলা ১১টার পর ভোট লুঠ হয়।”

শমসেরগঞ্জ তে দ্বিতীয় বারের জন্য জিতেছেন তৃণমূল প্রার্থী আমিরুল। তার আগে ওই আসনটি ছিল বামেদের । তবে ২০১৬ সালের থেকে জয়ের ব্যবধান বেড়েছে অনেকটা। এ বার তিনি জিতেছেন ২৬ হাজার ১১১ ভোটে। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেসের জইদুর রহমান লড়ে পেয়েছেন ৭০ হাজার ন’টি ভোট। ওই কেন্দ্রে সিপিএম প্রার্থী মহম্মদ মোদাসসর হোসেন পান ছ’হাজার ১৪৫টি ভোট। আমিরুল বলেন, ”আমরা জিতব বলেছিলাম। মানুষ উন্নয়নের পক্ষে ভোট দেন।”