dilip

২৬ জুলাই ২০২১ সকাল ৭.৩০ এর ফ্লাইট ধরে দিল্লি পৌছালেন দিলিপ ঘোষ। কিন্তু তার আগে তিনি সাংবাদিক দের কাছে কিছু কথা বলে যান। রাজ্যের পরিস্তিথি নিয়ে মুখ খোলেন তিনি, সাংবাদিক দের সামনে তিনি তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় কে তৃণমূলের চামচা বলে কটাক্ষ করেন। দিলিপ ঘোষ আরও বলেন এটো শিক্ষাকতা যগ্যতা কাজে না লাগিয়ে সৌগত রায় সারা জীবন তৃণমূলের চামচা গিরি আর দাসত্ব করে গেলেন। তবে এটা ভাবতেও অবাক লাগে যিনি এই কথ টি বলেছেন তিনি নিজেই কোনো এক দলের তরফদারি করতে ব্যাস্ত আছেন।

VoiceBharat News saugata

নিজের এত শিক্ষাগত যগ্যতা থাকা সত্যেও তিনি রাজনৈতিক মঞ্চে উঠে ভিত্তিহীন মন্তব্য করেছেন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কে কটাক্ষ করতে সেই রাজনৈতিক মঞ্চে অশালীন ভাষার প্রয়োগ করেছেন।।

তা ছাড়াও তিনি কয়েক দিন আগে ঘটে যাওয়া বাদল অধিবেশনে বিরোধি নেতা দের বিষয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন গত সপ্তাহে হওয়া বাদল অধিবেশনের কাজ ঠিক ভবে করতে দেন নি বিরোধি দলের নেতারা তাদের সংসদের ভিতরে অশান্তি সৃষ্টি করার ফলে মুলতবি করতে হয়েছিল অধিবেশন টি। এই বার আশা করি এরকম টি হবে না, তাদের কাছ থেকে অধিবেশনে শান্ত থাকার ও সহযোগিতার আশা রাখছি। কারন এই অধিবেশনে মানুষের সমস্ত রকম সমস্যা তুলে ধরার জন্যই এই অধিবেশন জরুরি।

এর পরেই তিনি কটাক্ষ করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর দিল্লির সফর নিয়ে কটাক্ষ শুরু করেন। তার বক্তব্য মাননীয়া দিল্লি গেছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে হাত জোর করতে এর আগেও ২০১৯ এ তিনি সেই একই কাজ করেছেন। পশ্চিমবঙ্গে যেরকম আর্থিক অবস্থ্যা তার উপর আবার তাদের দলের মধ্যে বেশ খুনাখুনি অবস্থ্যা এই সব সামলাতে না পেরেই নাকি মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী ছুটে গেছেন প্রধানমন্ত্রীর সাহায্য চাইতে। তবে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলিপ ঘোষ এইটা কি জানেন না প্রধান্মন্ত্রীর কাজ হল দেশের সমস্ত রাজ্যের উন্নয়নের জন্য রাজ্যসরকারের সহযোগীতা করা! এই রকম মন্তব্য কী একজন নেতা কে মানায়? প্রধানমন্ত্রীর পদে বসে কি পক্ষপাত করা যায় এটাই বড় প্রশ্ন মানুষের।

VoiceBharat News 1615891762

তবে দিলিপ ঘোষ কে যখন জিজ্ঞেস করা হল তার বিরোধীদল তো বাংলায় জিতেছে! তার উত্তরে তিনি বলেন আজ থেকে ৫ বছর আগে বিজেপির ভোট ছিল ১০% এর পর এটি বেড়ে বর্তমান অবস্থায় ৩৮% হয়ে দাঁড়ায়। মমতা বন্ধ্যপাধ্যায় যেখানে ছিলেন ওখানেই আছেন এখন। ৩ থেকে ৭৭ টি আসন, এগিয়ে গেছি আমরা। এখানে হেরে যাওয়া বলতে গেলে কংগ্রেস আর সিপিএম। ধিরে ধিরে দেখা মিলছে না তাদের

দিলিপ ঘোষ বলেন হেরে গেছেন মানোনীয়া মানুষ তাঁকে হারিয়েছে । পর পর ৩ বার মুখ্যমন্ত্রী হয়ার পর এই বার প্রমোশন চান তিনি। ২০২৪ এর নির্বাচনে তিনি লড়াই করতে পারবেন কি না তাই সন্দেহ। কিছু কিছু পলিটিক্যাল পার্টি আছে যাদের কোনো কাজ নেই ঘুরে ঘুরে পলিটিক্যাল ট্যুরিজম করে তাঁর এজেন্সি নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । তবে এখানে প্রশ্ন হল বিজেপির শত কাজ থাকা শত্যেও কেন বাংলার নির্বাচনের সময় বার বার ঘুরে ফিরে প্রচারের জন্য বাংলায় আসতে হচ্ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সহ অমিত সাহ ও যোগী আদিত্যনাথ দের মত বড় সড় মাপের নেতাদের! তবে কি এর পেছনেও দিলিপ বাবু হায়ার করেছিলেন কোনো এজেন্সি !

By Nisha Das

Nisha Das, Publisher Of VoiceBharat News nisha@voicebharat.com