kolkata bus

কলকাতাঃ রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রি আবেদন করেন, মানুষের স্বার্থে আপনারা বাস নামান। বিগত ২ বছর ধরে চলে আসছে এই এক ইস্যু, বাসে ভাড়া নিয়ে খুব একটা খুশি নয় বাসের মালিক রা। তবে বিধিনিষেধ পর্ব ক্ষেত্রে বাস চালানর অনুমতি মিললেও প্রথম দিনে বাস চালিয়ে আসানুরুপ ফল পাননি তারা। কিছু কিছু বাস নিজেদের বর্ধিত ভাড়া তে বাস চালালেও দেখা মেলেনি জাত্রির।

এ বিষয়ে বাস মালিকরা জানানঃ করনা পরিস্তিথির জন্য বেশির ভাগ সবই বন্ধ এবং খোলা নেই ট্রেন পরিসেবা। তবে জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেটের সাধারণ সম্পাদক তপন বন্দোপাধ্যায় জানান বাসে ৫০ শতাংশ যাত্রী চরলেও বাস কিন্তু ৫০ শতাংশ কম ডিজেলে চলে না। জ্বালানির দাম প্রতিদিন বেড়েই চলেছে এর মধ্যে আত কম জাত্রি নিয়ে বাস চলবে কি করে। বাসের মালিক দের এই কারনে বিগত ২ বছর ধরে বেশ লোকসানের মুখে পরতে হয়েছে।

এই কারনে রাস্তায় বাস নামান নি অনেক বেসরকারি বাসের মালিকেরা। তারা বেসারকারি বাসের ভাড়া বাড়ানোর জন্য চাপ সৃষ্টি করছেন রাজ্যের উপর।শুধু তাই নয় বেসরকারি বাসের ভাড়া যদি না বাড়ানো হয় তাহলে রাস্তায় নেমে আন্দলন করা হবে জানিয়েছেন সংগঠন গুলি।

২০১৮ সালে অক্টোবর মাসে কলকাতার রাস্তায় নেমেছিলেন জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেট। কারন ছিল কেন্দ্রসরকারের এই ভাবে জ্বালানির উপর মুল্যবিদ্ধি। কিন্তু এতে কন লাভ হয় না ৩ বছর কেতে জাওয়ার পরও দাম বেড়ে চলেছে একই ভাবে। গত বছর মার্চ মাস থেকে শুরু হয় লকডাউন তখন থেকে আজ অব্ধি লসের মুখে পরেছেন বাস শিল্পের মালিকেরা।

সংরগঠনের নেতা রাহুল চট্টোপাধ্যায় জানানঃ আমাদের শিল্পে অনেক রকম খরচ রয়েছে যা বাস চলুক অথবা না চলুক আমাদের তার ভর্তুকি দিতেই হয় যেমন- বিমা, পারমিট ফিস, রাস্তার কর, ব্যাঙ্কের ইএমআই। তিনি আরও জানান গত বছর আমরা কেন্দ্র সরকার ও রাজ্য সরকার এর কাছে একাধিক বার আবেদন জানাই কিন্তু এটার কোন সুরাহা হয়নি। রাজ্য সরকার কিছুটা সাহাজ্য করলেও সাহাজ্য মেলেনি কেন্দ্র সরকার থেকে, এই বিষয়টি নিয়ে পরিবহন মন্ত্রি দফায় দফায় জানান মুখ্যমান্ত্রি কে।

ডিজেল এর মুল্য প্রায় ৯০ ছুই ছুই তাই তারা চান লকডাউন খুললে বেসরকারি বাসের ভাড়া যাতে বাড়ানো হয়। এর সাথেই তাদের দাবি বিমা, পারমিট ফিস, রাস্তার কর, ব্যাঙ্কের ইএমআই মকুব করতে হবে এবং ডিজেল এ লাগাতে হবে জিএসটি। বাস শ্রমিকরা জানান মুখ্যমন্ত্রী অনেক মানবিক তিনি আমাদের কষ্ট বুঝবেন। তাই ওনার কাছে আমাদের অনুরোধ যে বাসের ভাড়া বাড়ানো হোক।

By Nisha Das

Nisha Das, Publisher Of VoiceBharat News nisha@voicebharat.com