আমাদের Telegram এ ফলো করুন সবার আগে সর্বশেষ আপডেট পান Click Here

Google News এ ফলো করুন Click Here

রেশন ডিলারদের মামলা খারিজ করে দিল আদালত : ‘দুয়ারে রেশন’ মহৎ প্রকল্প, বললেন বিচারপতি

Current India Economy Features Politics

গত বিধানসভা নির্বাচনের আগে থেকেই রাজ্য সরকার শুরু করেছিল একাধিক প্রকল্প। স্বাস্থ্যসাথী, খাদ্যসাথী, কন্যাশ্রী প্রভৃতি প্রকল্পের একাধিক জনস্বার্থ মুখী কাজ শুরু থেকেই সাড়া ফেলেছিল ব্যাপক।


এরপর ২০২১-এ আবারও ক্ষমতায় এসে সেই প্রকল্পকেই আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রয়াসে শুরু করেন ‘লক্ষীর ভান্ডার’, ‘দুয়ারে রেশন’,’স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড’ এর মতো আরও কয়েকটি প্রকল্প।


কিন্তু উল্লিখিত ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্পে বাধা হয়ে দাঁড়ান রেশন ডিলাররা। কিছু রেশন ডিলার এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে মামলা করে বসেন। তাদের বক্তব্য ছিল এই প্রকল্প খাদ্য নিরাপত্তা আইনের বিরুদ্ধাচরণ করছে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে রেশন পৌঁছে দেওয়া আইনবিরুদ্ধ কাজ বলেই তাদের দাবি ছিল।

তারা মামলার সপক্ষে আরও যুক্তি তোলেন, ডিলারশিপ নেওয়ার সময়ে বাড়ি বাড়ি রেশন পৌঁছবার কোনোরকম শর্ত ছিলনা। এখন হঠাৎ করে এই শর্ত দেওয়া হচ্ছে। ডিলারদের তেমন য উপযুক্ত পরিকাঠামো ও লোকজন নেই যাতে সেটা তারা পালন করতে পারে। কাজেই প্রকল্প স্থগিত করার জন্য তারা হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চের কাছে আবেদন জানায়। যদিও ১৫ সেপ্টেম্বর তারিখে আদালত সেই আবেদন খারিজ করে দিয়েছে। কাছে আবেদন জানায়। যদিও ১৫ সেপ্টেম্বর তারিখে আদালত সেই আবেদন খারিজ করে দিয়েছে।

পরিবর্তিত পরিস্থিতি এবং জনস্বার্থকে অগ্রাধিকার দিয়ে বিচারপতি অমৃতা সিনহা তাঁর বক্তব্যে বলেন ,
“একটা অদৃশ্য ভাইরাস আমাদের দেখিয়ে দিয়েছে প্রয়োজনীয়তাই উদ্ভাবনের মূল কারণ। এর ফলে মানুষের দৈনন্দিন জীবনযাত্রায় নানা পরিবর্তন এসেছে। বিভিন্ন সংস্থা, এমনকি বেসরকারি সংস্থাও মানুষের দরজায় গিয়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছে। দুয়ারে রেশন প্রকল্পের উদ্দেশ্য মহৎ , এর দ্বারা কোনো আইন অমান্য হচ্ছেনা বলেই মনে করছে আদালত”।


বিচারপতি অমৃতা সিনহার এই সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর কার্যত ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্পে আর কোনও বাধা থাকলনা। রেশন ডিলাররা যদিও এতে দমে যাননি। এই দিনই সিঙ্গল বেঞ্চের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে তারা ডিভিশন বেঞ্চের নিকট দ্বারস্থ হন।
হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ প্রথা অনুযায়ী মামলা গ্রহণ করলেও বিশেষ আমল দেননি। আদালতের রায় যে এই প্রকল্প সম্পর্কে জনস্বার্থকেই বড় করে দেখছেন সেটা অত্যন্ত পরিস্কার।