243553795_414012680082048_468583338136734104_n_1633146256884_1633146266593

অভিনয় থেকে রাজনীতি , সবেতেই সমান স্বাচ্ছন্দ্য সায়নী ঘোষ। এখন মন দিয়ে রাজনীতিই করতে চান — এমনই ইচ্ছে তাঁর। কাজ পাচ্ছেন না?


একেবারেই তা নয়। বর্তমানে অনীক দত্তর ছবি ‘অপরাজিত’-র শ্যুটিংয়ে ব্যস্ত। সত্যজিৎ রায়ের দ্বারা অনুপ্রাণিত এই ছবিতে সায়নী ঘোষ বিমলা রায়। তাই বলে এ ছবি সত্যজিৎ পত্নী বিজয়া রায়ের বায়োপিক নয়, এখনই মূল গল্পটা ভাঙেননি পরিচালক,  তবে এই ছবিতে সায়নী ঘোষ যে একটি বড় চরিত্র করছেন তাতে সন্দেহ নেই।

তবু সায়নী বলছেন, “এমন সময়ও গেছে যখন বছরে বারো চোদ্দটা ছবি করেছি। এখন রাজনীতিটা মন দিয়ে করতে চাই । তবু ভালো চরিত্রের প্রতি একটা আকর্ষণ তো থাকেই”।

ওই আকর্ষনেই আবার শ্যুটিং ফ্লোরে ফিরলেন তৃণমূল নেত্রী। রাজনীতির সাথে ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে থাকায় ফেসবুকে তিনি জনসংযোগে বেশিই অ্যাক্টিভ।
সম্প্রতি শ্যুটিং ফ্লোর থেকেই একটা ছবি তিনি পোস্ট করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। চেনা যাচ্ছেনা এ কোন সায়নী ঘোষ? লাল পেড়ে শাড়িতে বিবাহিতার সাজ, হাতে শাঁখা পলা, নাকে নথ , কপালে সিঁদুর!
ক্যাপশনে লিখেছেন “চাপের মধ্যেও সাহস ধরে রাখাই হল লাবন্য”।


স্বভাবতই ফ্যান ফলোয়ারদের কাছে সায়নীর ছবি ঘিরে সাড়া পড়ে যায়। কিন্তু একটা ভুল থেকে গেছিল সায়নীর সাজে। সেই ভুল ধরিয়ে  দিলেন এক নেটিজেন।


সায়নীর ছবির কমেন্টে একজন লেখেন ,”খুব সুন্দর লাগছে, তবে শাঁখা পলাগুলো একটু সোজা করে পরলে ভালো হত। আগে শাঁখা, পরে পলা পরতে হয়”।
এর উত্তরে সায়নী যা লেখেন, তাতে সহজেই প্রমাণ হয়ে গেল গ্ল্যামার ওয়র্ল্ডে থাকা সত্ত্বেও জনসাধারণের সাথেই সংযোগ রেখে চলেন তৃণমূল নেত্রী সায়নী।

ভুল ধরিয়ে দিতেই তিনি স্বচ্ছন্দে তা গ্রহণ করে রিপ্লাই দেন, “আপনি আমাকে কমিউনিটি মিস্টেকের মতো বিরাট ভুল থেকে বাঁচালেন। আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ”।
এই পোস্টের কমেন্ট ও রিপ্লাই দেখে একই সঙ্গে অভিনেত্রী ও জননেত্রী সায়নী ঘোষকে আরও একবার চিনলেন সাধারণ মানুষ।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com