কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

শ্রীলেখাই টুম্পা! শশাঙ্কের বিরুদ্ধে উঠল টুম্পাকে খুনের অভিযোগ!

Current India Features Nature

দময়ন্তী ভার্সেস শশাঙ্ক। মাঝখানে অভিনেত্রী শ্রীলেখা। যার প্রাণ গেল তার গেলই। সে একটি বাচ্চা কুকুর, যার আদুরে নাম টুম্পা। টুম্পা আসলে শ্রীলেখাই! শশাঙ্কের বিরুদ্ধে উঠল টুম্পাকে খুনের অভিযোগ। আঙুল তুললেন পশুপ্রেমী দময়ন্তী সেন। মুশ্কিল হল – টুম্পা এসব কিছুই জানেনা!
পড়তে গিয়ে গুলিয়ে যাচ্ছে? সমীকরণ মেলাতে পারছেননা?


গুলিয়ে একটু যাবেই। কেননা ছোট্ট অবোলা পশুটির পরিণতি যত মর্মান্তিকই হোক, পেছনের ঘটনাটি চমকপ্রদ। জুলাই মাসে ডেটিংয়ে গেছিলেন শ্রীলেখা মিত্র ও শশাঙ্ক ভাভসর। রেড ভলান্টিয়ার শশাঙ্ক শ্রীলেখার কাছে পশুপ্রেমী বলেই নিজের ইমেজ তৈরি করেছিলেন। অভিনেত্রী ডেটিংয়ে যাওয়ার শর্তে বলেছিলেন একটি স্ট্রিট অ্যানিমালের দায়িত্ব নিতে হবে এবং সেলফি তুলে দেখাতে হবে শশাঙ্ককে। তবেই ডেটে যাবেন তিনি। টুম্পা এসব কিছুই জানেনা।

কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304


শশাঙ্ক রাজি হওয়ায় পশুপ্রেমী দময়ন্তী নিজে দাঁড়িয়ে থেকে একটি বাচ্চা কুকুরের দত্তক নেওয়ার ব্যবস্থা করে দেন। শ্রীলেখা মিত্রর ডাকনাম টুম্পা। তাই আদর করে শশাঙ্ক নতুন সারমেয়টিকেও নাম দেন টুম্পা।

কথা রেখে শশাঙ্কের সাথে জুলাই মাসে ডেটিংয়ে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী । কলকাতার একটি ক্যাফেতে মিলিত হলেন । তাদের সাথে মিলিত হল কফি স্যান্ডউইচ চিকেন উইংস আর চকলেট। টুম্পা এসব কিছুই জানেনা।
ডেটিং ফেটিং সেরে ছবি তুলে বিখ্যাত আড়িয়াদহের শশাঙ্ক টুম্পার দেখভাল করছিলেন এমনটাই ভেবেছিলেন দময়ন্তী ও শ্রীলেখা। অকস্মাৎ শশাঙ্কের ফেসবুকে পোস্ট ‘টুম্পা আর আমাদের মধ্যে নেই’।

সেই মূহুর্তে শ্রীলেখা অনেকদূরে বিদেশে। রিয়্যাকশানে দুঃখ প্রকাশ করেন। কিন্তু আজ আচমকাই লাইভে চলে আসেন দময়ন্তী। প্রবল ক্ষোভে আছড়ে পড়েন শশাঙ্কের বিরুদ্ধে।
ভিডিওটিতে যথেষ্ট পরিমাণে আবেগপ্রবণ ছিলেন তিনি। ভালো করে কথা বলতে পারছিলেন না। প্রকাশ্যেই জানাতে শুরু করেন দিনের পর দিন জমতে থাকা সন্দেহের কথা। বারবার জানতে চাইলেও আপডেট দিতেন না শশাঙ্ক। দিতে পারেন নি নিজের সাথে টুম্পার লাস্ট ভিডিও। ঘরে থাকা একটি কুকুর ছানার অ্যাকসিডেন্ট কীভাবে হতে পারে মেলেনি সদুত্তর।

দময়ন্তী স্পষ্ট হুঁশিয়ার করলেন শশাঙ্ককে – টুম্পার খুনীকে তিনি ছাড়বেন না। দেখাদেখি ধিক্কার দিলেন শ্রীলেখাও । কিন্তু মৃত টুম্পা এসব কিছুই জানলনা।
অভিযোগ উঠলেও কেন শশাঙ্ক খুন করলেন সারমেয়টিকে? এবং কীভাবে? সেটা অবশ্য পরিস্কার নয়। এটা একমাত্র টুম্পাই জানত। বোধহয় এখন আর জানা সম্ভব নয়।