mcms (1)

৬ জন মহিলা সাংসদ ঘিরে নিলেন শশী থারুরকে, উদ্দেশ্য! আর কিছু নয়, সেলফি। শীতের মরসুমে সংসদের প্রথম অধিবেশনের ফাঁকে উষ্ণ মেজাজে গ্ল্যামার জগতের মহিলা সাংসদরা শশী থারুরকে মধ্যমণি করে একটা সেলফি তুলে নেন। কংগ্রেস সাংসদ শশীও সেই ছবি নেটমাধ্যমে আপলোড করে ট্যুইট করে লেখেন, “কে বলে লোকসভা কর্মক্ষেত্র হিসেবে আকর্ষণীয় নয়!” ব্যস, শশী থারুরের এই ছবি এবং মন্তব্য ঘিরে নেটনাগরিকদের মধ্যে বিতর্ক শুরু হয়ে যায়।


সেলফিতে দলমত নির্বিশেষে অনেকেই ছিলেন। বরামতির সাংসদ সুপ্রিয়া সুলে, এছাড়াও ছিলেন প্রণীত কৌর, এস জ্যোথিমনী। পাশাপাশি — ছবি আলো করে টলিউডের গ্ল্যামার জগত থেকে আসা নুসরত জাহান ও মিমি চক্রবর্তীও ছিলেন সবার প্রথমে। এঁদেরই মধ্যমণি হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর।

মহিলা কলিগদের নিয়ে সম্ভবত সহজ মজার ভঙ্গীতেই পোস্ট করেছিলেন সেই ছবি। কিন্তু নেটমাধ্যমে এই ছবি ঘিরে ব্যাপক ট্রোলিং শুরু হয়। ‘আকর্ষণীয় কাজের ক্ষেত্র’ বলায় অনেকেই শশীর মন্তব্যে মহিলাদের ‘অবজেক্ট’ মনে করার ইঙ্গিত তুলেও আক্রমণ করেন। কেউ কেউ তো টিপ্পনী করে বরিষ্ঠ সাংসদকে ‘দাদা’ বা ‘কাকু’ বলেও সম্বোধন ছুঁড়তে থাকেন।


ট্রোলিং মাত্রা ছাড়ানোয় শেষপর্যন্ত ক্ষমাপ্রার্থনা করে আরো একটি ট্যুইট করেন শশী থারুর। সেখানে তিনি লেখেন, “ছবিটি মহিলা সাংসদদের ইচ্ছেতেই তোলা হয়েছে। তাঁদের কথা রাখতে নিছক মজার ছলেই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা হয়। এতে যদি কেউ অসন্তুষ্ট হয়ে থাকেন, তাহলে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। কিন্তু আমি সংসদের এই বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশের অংশীদার হতে পেরে খুব খুশী! ব্যস, এটাই বলার ছিল।”

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com