কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

সম্পর্কহীন সন্তান,জন্ম নিল ‘ই-বেবি’

Features Health International

ইন্টারনেটের মাধ‍্যমে ৩৩ বছরের স্টেফেনি টেলর জন্ম দিল এক কন‍্যা সন্তানের।সম্পর্কে না গিয়ে শুধুমাত্র ইসাইট অ্যাপ থেকে শুক্রানু কিনে নিজেই ইউটিউব দেখে সেই শুক্রাণুকে গর্ভে প্রবেশ করিয়ে শেষে সন্তানের জন্ম দিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছে স্টেফেনি।

কোনও রকম সম্পর্কে যেতে চাননি ৩৩ বছরের স্টেফানি টেলর।শুধু মাত্র সন্তান পাওয়ার জন‍্য কোন সম্পর্কে যেতে নারাজ ছিলেন তিনি।কিন্তু চেয়েছিল সন্তান পেতে। উপায় ছিল তাঁর কাছে একটাই ,গর্ভধারণ কেন্দ্রে গিয়ে সন্তান ধারণ করা।স্টেফনির সেই পথ ও নাপছন্দ ছিল। ইন্টারনেট থেকে শুক্রাণু কিনেছেন স্টেফানি।নিজেই ইউটিউব দেখে সেই শুক্রাণু গর্ভে প্রবেশ করানোর পদ্ধতি শিখে নিয়েছিলেন।শেষে
অ্যাপ থেকে প্রজনন প্রক্রিয়ার দরকারি জিনিসপত্র কিনে নেন। তাঁর যুক্তি ছিল অনলাইনে যখন সব কাজ হচ্ছে, তবে সন্তান ধারণেই বা সমস্যা কোথাও নেই।

কম মুল্যে আপনার পন্যের বিজ্ঞাপন দিন অথবা খবরের মাধ্যমে প্রচার করুন আপনার ব্যাবসা, বিস্তারিত জানতে WhtasApp / Call 8585047304

এরপর দশ মাস পরে এক কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন।কন্যার নাম দেন ইডেন।ইন্টারনেটে বেবি হওয়ায় পরিচিতরা ইডেনের আরও একটি নাম রেখেছেন‘ই-বেবি’।
স্টেফনির কাহিনি শুনেও অনেকের মনে হয়েছে এই সন্তানের জন্মের সঙ্গেও ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে অনলাইনের বিষয়-আশয়। তাই ইডেন আসলে ‘ই-সন্তান’।
সকলেরই একটাই প্রশ্ন গর্ভধারণ কেন্দ্রে না গিয়ে বাড়িতে গর্ভধারণ করেছেন স্টেফনি ।তার উওরে তিনি জানিয়েছেন, তিনি প্রথমে বিকল্পটি দেখেছিলেন। প্রথম দিকে গর্ভধারণ কেন্দ্রে যোগাযোগ করেছিলেন। কিন্ত মূল্য বেশি থাকায় বিকল্প খুঁজতে বাধ্য হন স্টেফনি।


যদিও স্টেফেনির পাঁচ বছরের এক পুত্রসন্তান আছে তবুও দ্বিতীয় সন্তানের চেষ্টা করছে বিষয়টি শুনে তাঁর এক বন্ধু স্টেফনিকে অনলাইনে শুক্রাণু কেনার একটি অ্যাপের সন্ধান দেয়।অ্যাপে শুক্রাণু দিতে ইচ্ছুক ব্যক্তির পরিবার ও স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্ত তথ্যই পাওয়া যায় ওই অ্যাপে।স্টেফনি জানিয়েছেন,ওই অ্যাপ থেকেই নিজের সন্তানের জন্য শুক্রাণু দাতা খুঁজে নেন।
স্টেফনির ইচ্ছা ছিল তাঁর সন্তান তাঁরই মতো দেখতে হোক।সেই জন‍্য এমন শুক্রানু দাতা খুঁজে ছিলেন যাঁর শারীরিক গঠন তাঁর সঙ্গে মেলে ও স্বভাবের দিক থেকেও পরিবারমুখী মানুষ চাইছিলেন। একদিনের মধ‍্যেই পছন্দমত শুক্রাণু দাতা পেয়ে যান স্টেফনি সঙ্গে দু’সপ্তাহের মধ্যেই শুক্রাণু পেয়েও যান তিনি। প্রথম চেষ্টা তাঁর সফল হয়।


প্রথমে তাঁর বাড়ির সদস্যরা রাজি না হলেও ইডেনের জন্মের পর তাঁরা সবাই খুশি। সম্পূর্ণ নিজের প্রচেষ্টায় সন্তানের জন্ম দিতে পেরে স্টেফনি গর্বিত ,এমনই জানিয়েছেন তিনি।
ইন্টারনেটের যুগে ঘরে বসে অনেক কঠিন কাজ সেরে ফেলাই সম্ভব।স্টেফনি ইন্টারনেটের মাধ‍্য্যমেই -বেবির জন্ম দিয়ে তাক লাগিয়ে দিলেন।