Muslim_woman_1637850138925_1637850143842

এই একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়েও সমাজের শাসনের বলি হচ্ছে মেয়েরাই। ঠিক যেন কাঠের পুতুল! কোথাও তাকে জোর করে হিজাব পরানো হচ্ছে ‘আব্রু’র জন্য, কোথাও আবার হিজাব পরার কারণেই তাদের চাকরির প্রার্থী পদ বাতিল করে দেওয়া হচ্ছে। এই ঘটনা ঘটল কলকাতায়।


ওয়েস্টবেঙ্গল পুলিশের কনস্টেবল পদের জন্য আবেদন করেছিলেন মুসলিম ধর্মাবলম্বী কয়েকজন মহিলা। অ্যাডমিট কার্ড প্রকাশের সময়ে শুধুমাত্র হিজাব পরা ছবির কারণে তাঁদের প্রার্থীপদ বাতিল হয়। তার বিরুদ্ধেই প্রতিবাদ জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন করেন তাঁরা। সোমবারে এই মামলার শুনানিতে বলা হয়, দায়ের হওয়া মামলার ভিত্তিতেই নিয়োগ হবে। ওয়েস্টবেঙ্গল পুলিশের নিয়োগের পদ্ধতি, এই মামলা সংক্রান্ত রিট পিটিশনকে মান্যতা দিয়েই করার নির্দেশ দিল হাইকোর্ট।


ওয়েস্টবেঙ্গল পুলিশের কনস্টেবল পদের জন্য প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হয়েছিল ২৬ সেপ্টেম্বর ; ওই মাসেরই শুরুতে আবেদনকারীদের অ্যাডমিট কার্ড প্রকাশ করা হয়। তাতে প্রায় ১০০০ মহিলার প্রার্থীপদ খারিজ হয়ে যায় শুধুমাত্র হিজাব পরা ছবির কারণে। ২০২০ সালের ওয়েস্টবেঙ্গল রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের নতুন সার্কুুলারের নির্দেশ অনুয়ায়ী — প্রার্থীর ছবিতে মুখ বা মাথায় কোনওরকম ঢাকাচাপা থাকলে চলবেনা, এমনকি চোখে সানগ্লাস পরেও ছবি তোলায় সমান নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এই কারণে হিজাব পরিহিত মহিলাদের প্রার্থীপদ খারিজ হয়ে যায়।

এর বিরুদ্ধেই কয়েকজন মহিলা হাইকোর্টে মামলা করেন। তাঁদের বক্তব্য, আগের বছর অর্থাৎ ২০১৯এর সার্কুলারে এমন কোনও নিয়মের কথা বলা ছিলনা, এবারেও আগাম কিছু জানানো হয়নি। শুধু তাই নয় রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের নতুন এই নিয়ম সংবিধানের ২৫ নম্বর ধারাকে উল্লঙ্ঘন করেছে। যে ধারায় ব্যক্তির মৌলিক অধিকার সম্পর্কে স্পষ্ট উল্লেখ আছে, নির্দেশ আছে ‘কোনও ব্যক্তিকে অন্য ধর্ম গ্রহণে বাধ্য না করার’। হিজাব যেহেতু মুসলিম মহিলাদের ধর্মীয় রীতির মধ্যেই পড়ছে, তাই বোর্ডের ওই নতুন নিয়ম নিয়ে প্রশ্ন উঠছে বৈকি!


হাইকোর্টের বিচারপতি অরিন্দম মুখার্জি মামলার শুনানিতে বলেন, “প্রাথমিকভাবে আমার মনে হচ্ছে কোনও বিতর্কিত বিষয় জড়িয়ে না থাকায় কোনও হলফনামা ছাড়াই বিষয়টির মীমাংসা হতে পারে”। পাশাপাশি ওয়েস্টবেঙ্গল পুলিশের নিয়োগ পদ্ধতির ফলাফল রিট পিটিশনের নির্দেশ অনুযায়ী করার কথা উল্লেখ করেন তিনি। কোনও ক্ষেত্রে নাগরিকের মৌলিক অধিকার লঙ্ঘিত হলে সংবিধানের ১০২ অনুচ্ছেদ অনুসারে উচ্চ আদালত বিশেষ ঘোষণা এবং আইন লাগু করার ক্ষমতা রাখেন। এই ঘোষিত বিশেষ নির্দেশিকাই হল ‘রিট’ । এক্ষেত্রে ওয়েস্টবেঙ্গল পুলিশকে যা পালন করার নির্দেশ দিল আদালত। এই মামলার পরবর্তী শুনানি ৬ জানুয়ারী হবে।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com