VoiceBharat News IMG 20220131 155617

বিগত ৭ বছর ধরে প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ভারতীয় সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য সংরক্ষণে বহু কাজ করে আসছেন। তার একটি বিশেষ ও লক্ষ্যণীয় দিক হল, ভারতের ইতিহাসের স্মরণীয় ব্যক্তিত্বদের জনগণের কাছে পুনঃস্থাপন করা। সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের শ্রদ্ধায় স্ট্যাচু অফ ইউনিটি, ইন্ডিয়া গেটে নেতাজি সুভাষচন্দ্রের মূর্তি নির্মাণের ঘোষণা , ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়াল স্থাপন। এছাড়াও বিভিন্ন রাস্তার নাম পরিবর্তন করে স্মরণীয় ব্যক্তির নামে রাখা হচ্ছে। মুঘলসরাই স্টেশন বদলে দীনদয়াল উপাধ্যায় স্টেশন, আন্দামান বিমানবন্দর বদলে বীর সাভারকর বিমানবন্দর, ঝাঁসি রেলস্টেশন লক্ষীবাই স্টেশনে রূপান্তর।

পাশাপাশি আমরা যদি পশ্চিমবঙ্গের দিকে তাকাই, দেখা যাবে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও ঠিক একই উপায়ে মেট্রো স্টেশন থেকে শুরু করে সড়ক রাস্তাঘাট একাধিক স্মরণীয় ব্যক্তিদের নামে স্মরণীয় করে তুলেছেন। এখন দুটি প্রশ্ন, এর প্রয়োজনীয়তা কতটা? এবং পার্থক্যটা কোথায়?

VoiceBharat News images 2022 01 31T154115.167


প্রথম প্রশ্নের উত্তরটি এককথায় দেওয়া যায়, স্বাধীন ভারতে তথা একটি রাজ্যে ইতিহাসের নিদর্শনকে চিহ্নিত করে রাখা। জাতীয়তাবোধে উদ্দীপ্ত দুই দলই সেই প্রচেষ্টা করেছেন।

এবার দ্বিতীয় প্রশ্নের উত্তর, অর্থাৎ পার্থক্য করতে গেলে একটু ইতিহাসের পাতা ওল্টাতে হবে।স্বাধীনতা পূর্ব ভারতবর্ষে বাংলার ‘রেনেসাঁ’ অর্থাৎ ‘নবজাগরণ’ একটি উজ্জ্বল অধ্যায়রূপে জ্বলজ্বল করছে। ডিরোজিও যার উদ্গাতা, এবং রামমোহন রায়ের হাত ধরে যার সূচনা।

VoiceBharat News images 2022 01 31T153457.659

এই ধারাটি অচিরেই শেষ হয় স্বামী বিবেকানন্দর উত্থানে। রেনেসাঁ অর্থাৎ নবজাগরণ পরিবর্তিত হয় ‘রিভাইভাল’ অর্থাৎ ‘পুনরুত্থান’-এ। যার উদ্গার মানে ঢেঁকুর আগেই তুলে রেখেছিলেন ঋষি বঙ্কিমচন্দ্র; ভারত তথা বিশ্বভ্রমণের নিরিখে বিবেকানন্দর মাধ্যমে যা সর্বাধিক জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। অনেক তাত্ত্বিক এই দুইয়ের ভেতর পার্থক্য নিরূপণ করতে ভুলে যান। অথচ এটি না বুঝলে নেতাজি এবং নাথুরাম গডসেকে এক আসনে বসিয়ে দেবার মতোই বিভ্রম ঘটবে। গান্ধী বনাম সুভাষচন্দ্র, আর গান্ধী বনাম গডসে মোটেই এক বিতর্ক নয়। বিস্তারিত ইতিহাস হাতড়ালেই পাবেন।

VoiceBharat News images 2022 01 31T153422.019
এখন, ঘটনাক্রমে বাংলার এক বৃহৎ অংশ ‘রেনেসাঁ’-র আদর্শেই বিশ্বাসী ছিলেন। সুভাষচন্দ্রের ব্যক্তিগত জীবনের দ্বন্দ্বে শেষমেশ যার প্রতিফলন আমরা দেখতে পাই। যেকারণে বিবেকানন্দের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে সন্ন্যাসীরূপে ঘরছাড়া সুভাষ অবশেষে পথ বদলে আইএনএ-র প্রতিষ্ঠাতা নেতাজিতে রূপান্তরিত হন। কিন্তু গোটা ভারতবর্ষের জাতীয়তাবাদ মোটেই তার অনুকূল ছিলনা।

গান্ধী এবং গডসেকে আমরা কি তবে একই উৎসের ভিন্নরূপ বলতে পারি? একাংশের মতে কিছুটা তাই। নাহলে হিন্দুদের মধ্যে বর্ণবৈষম্যের প্রতিবাদী শিক্ষিত ব্যক্তি নাথুরাম গডসে মুসলিমবিরোধী হয়ে উঠলেন কেন? কারণ ‘হিন্দু পুনরুত্থানবাদী’রা শেষমেশ ভারতের স্বাধীনতাকে ‘হিন্দু ভারতীয়দের’ স্বাধীনতা বলেই মনে করেছিলেন। গান্ধীজিকে অনেকে বলতে পারেন উদারপন্থী ও সংশোধনবাদী হিন্দু ও নাথুরাম গডসে অনড় অচল গোঁড়া হিন্দু।

VoiceBharat News images 2022 01 31T153219.619

এই দুইয়ের প্রতিফলন একইসাথে বিবেকানন্দের মধ্যে প্রতিফলিত হয়েছে। আবার যার আশ্চর্য সংমিশ্রণ ঘটে ভিন্ন রসায়ন তৈরি হয়েছে দার্শনিক রবীন্দ্রনাথের মধ্যে। আর সুভাষচন্দ্র বহন করছিলেন ‘রেনেসাঁ’। গান্ধী-সুভাষ ও গান্ধী-গডসে বিরোধ আসলে দুই বিপরীত মেরুরই টানাটানি। যার নিটফল — সুভাষচন্দ্রের অন্তর্ধান, গান্ধাীজির হত্যা ও নাথুরাম গডসের ফাঁসি। ইতিহাসের চলন এটাই প্রতিপন্ন করে।

VoiceBharat News images 2022 01 31T153228.645 1

বাংলা আজও মনেপ্রাণে রেনেসাঁর ঐতিহ্যই বহন করে আর সেখান থেকেই কংগ্রেস ভেঙে তৃণমূল কংগ্রেস জন্ম নেয়। নাহলে ভাঙার প্রয়োজন হতনা। তৃণমূল কংগ্রেসের। দৃষ্টিতে তাই গান্ধীও গুরুত্বপূর্ণ, সুভাষও অনস্বীকার্য ব্যক্তিত্ব। কেন্দ্রের দৃষ্টিকোণ তা প্রতিফলিত করেনা। সচেতন মহলের একাংশ এখানেই তফাতটা নিরূপণ করতে চান।

VoiceBharat News images 2022 01 31T153312.885

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com