VoiceBharat News IMG 20220204 174906

এবার হিন্দু পাত্রকে পছন্দ করে বিয়ে করার ফলে মুসলিম মৌলবাদের আক্রোশের মুখে পড়লেন এক তরুণী। তাঁকে এবং তাঁর পরিবারকে সমাজছাড়া করার হুমকি দিয়েছে স্থানীয় মসজিদ কমিটি। ঘটনাটি ঘটেছে বাংলাদেশের শ্রীহট্ট জেলায়।

VoiceBharat News pro 27


শিক্ষায় সংস্কৃতিতে আধুনিকতার স্পর্শ পাওয়া সত্ত্বেও এমন ধর্মান্ধ ঘটনা আজও বহুস্থানেই ঘটে চলেছে। সব ধর্মেই ‘মৌলবাদ’ মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে মাঝে মাঝেই। তাঁরা না মানেন কোনও যুক্তি, না মানতে চান কোনও আইন। বিচারকের আসনে নিজেদের বসিয়ে ফেলেন নিজেরাই। সম্প্রতি এমনই ঘটনা দেখা গেল শ্রীহট্টের কুলাউড়া গ্রামে। ভিন্ন ধর্মে বিয়ে করায় মসজিদ কমিটির প্রতিহিংসার মুখে পড়লেন ঝর্ণা চৌধুরী–সম্পূর্ণ নাম নুরুননাহার চৌধুরী ঝর্না।

VoiceBharat News news image 1643653288
গ্রামের মেয়ে হলেও পড়াশোনার কারণে আমেরিকায় থেকেছেন ঝর্না চৌধুরী। স্বাভাবিক ভাবেই ধর্মীয় সংকীর্ণতা তাঁকে স্পর্শ করতে পারেনি। ভালোবেসে একজন হিন্দু ধর্মাবলম্বী পাত্রকে বিয়ে করেন ঝর্না। আর এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই গলা চড়িয়ে তাঁর জীবন অতিষ্ঠ করে তুলেছে মৌলভীবাজারের মসজিদ কমিটি।

এই বিরোধ তীব্র আকার নেয় এবং ঝর্ণা চৌধুরীর পরিবার সামাজিক নির্যাতনের শিকার হয়। এরপরেই স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয়ে ঝর্ণা চৌধুরীর পরিবার ও মসজিদ কমিটির প্রতিনিধিদের ডেকে আলোচনায় বসেন ইউএনও। কুলাউড়া থানার ওসি বিনয়ভূষণ দেব, ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রমুখের উপস্থিতিতে এই বৈঠকে আলোচনা করা হয়।

এক্ষেত্রে ঝর্ণা চৌধুরীর কাছেই শেষমেশ নতি স্বীকার করতে বাধ্য হয় মসজিদ কমিটি। আমেরিকার প্রবাসী ঝর্ণা জোরালো বক্তব্য রেখেছেন। তিনি ধর্মান্ধ প্রতিনিধিদলের উদ্দেশ্যে স্পষ্টতই বলেন, “আমি কী পোশাক পরব, কার সঙ্গে ছবি তুলব, কার সঙ্গে চলব সেটা সম্পূর্ণ আমার ব্যক্তিগত অধিকার। এব্যাপারে আমাকে এলাকার লোক নির্ধারিত করে দিতে পারেনা।

VoiceBharat News images 2022 02 04T170322.313 1

মসজিদ কমিটির লোক অতি উৎসাহী হয়ে আমার পরিবারকে একঘরে করে দিয়েছে, এটা অনধিকার চর্চা।” ঝর্ণা চৌধুরী আরো বলেছেন , “এইসব নারীবিদ্বেষী মৌলবাদীদের অনেক আগেই নিয়ন্ত্রণ করতে পারতাম। তবে অভিযুক্তরা ইউপি চেয়ারম্যানের কাছের লোক হওয়ায় তার কাছে অভিযোগ জানালেও কোনও লাভ হয়নি।”

আসলেই প্রভাবশালীদের ইন্ধনেই মৌলবাদ উস্কানি পায়, ঝর্না চৌধুরীর ঘটনাটিই তার প্রমাণ। তাছাড়া ঝর্ণার বাবার লিখিত অভিযোগ থেকে জানা গিয়েছে, Positive generation of society Bangladesh নামে একটি সংগঠন চালিয়ে আসছেন ঝর্ণা। এই সংস্থা নারীশিক্ষা, নারী অধিকার নিয়ে বরাবরই সরব, এবং এই সংক্রান্ত নানাবিধ কর্মসূচির দায়িত্ব পালন করতেন বলেই কিছু লোকের বিদ্বেষ জমানো ছিলই ঝর্ণার বিরুদ্ধে। অন্য ধর্মের পাত্রকে বিয়ে করায় তারা প্রতিশোধের একটি ইস্যু পেয়ে যায়। যদিও ঝর্ণা চৌধুরীর আপোষহীন মনোভাবের কাছে শেষমেশ এই স্বঘোষিত বিচারকদের নতি স্বীকার করতেই হয়।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com