IMG_20220106_190243

রাজ্যে করোনা সংক্রমণ আবারো বেড়েছে। দৈনন্দিন জীবনযাত্রায় কিছু বিধি নিষেধ এবং মাইক্রো কন্টেনমেন্ট জোন তৈরি হচ্ছে বিভিন্ন এলাকায়। এই পরিস্থিতিতে গঙ্গাসাগর মেলা নিয়ে রাজ্যসরকারের মতামত জানতে চেয়েছিল হাইকোর্ট। আজ পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যসরকারের অ্যাডভোকেট জেনারেল সৌমেন্দ্রনাথ মুখার্জি বিচারপতিকে জানান, মেলা বন্ধের পক্ষে মতামত দিচ্ছেনা রাজ্য, বরং প্রয়োজনীয় কোভিড বিধি মেনেই মেলা চলুক এটাই চাইছে রাজ্যের তৃণমূল সরকার।

উল্লেখ্য, রাজ্যের করোনা পরিস্থিতিতে গঙ্গাসাগর মেলা সত্বর বন্ধ করার আর্জি জানিয়ে হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন ডাক্তার অভিনন্দন মন্ডল। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই রাজ্যের মতামত জানতে চেয়েছিল হাইকোর্ট।

আজ রাজ্যের মতামত জানিয়ে গঙ্গাসাগরের বিধি বন্দোবস্তের কথা বুঝিয়ে বলেন আইনজীবি। তিনি জানান, গঙ্গাসাগরে ‘ই-স্নান’, ‘ই-দর্শন’ প্রভৃতি ভার্চুয়াল মাধ্যমের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও ১০ হাজার পুলিশ ও ৫ হাজার ভলান্টিয়ার থাকবেন তত্ত্বাবধানের জন্য। মেলার কাছাকা‌ছিই ২৫০ মিটারের মধ্যে হাসপাতাল ও ২৩৫ টি বেড সম্বলিত কোয়ারেন্টাইন সেন্টার সবকিছুর বন্দোবস্ত থাকছে। কিলোমিটার বিস্তৃত এই মেলায় ইমিমধ্যেই প্রায় ৩০ হাজার সাধুসন্ন্যাসী এসে পড়েছেন। সুতরাং এই অবস্থায় মেলা কোনভাবেই বন্ধ করা যাবেনা, নিজেদের সিদ্ধান্ত সাফ জানিয়ে দিল রাজ্য।


প্রসঙ্গত, সাগরমেলাকে কেন্দ্র করে দুদিন আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করেছিলেন বিজেপির রাজ্যসভাপতি সুকান্ত মজুমদার। বলেছিলেন, “মুখ্যমন্ত্রী চক্ষুলজ্জার কারণে মেলা বন্ধের কথা নিজেমুখে বলতে পারছেননা।”

এদিন নিজেদের সিদ্ধান্ত পরিস্কার জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জবাবে বুঝিয়ে দিলেন, মেলা বন্ধের কথা ভাবছেইনা রাজ্যসরকার। বরং বিধিনিষেধ মেনে তাঁরা মেলা চালু রাখতেই চাইছেন।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com