IMG_20220313_174731

জম্মু-কাশ্মীরে জঙ্গি ক্রিয়াকলাপ এবং আইএসআইয়ের সন্ত্রাসবাদের জেরে পাকিস্তানের সাথে ভারতের সম্পর্কে এমনিতেই প্রতিকূল। তারই মধ্যে একটি যান্ত্রিক ত্রুটির ফলে ঘটে যাওয়া দুর্ঘটনাকে হাতিয়ার করেই সুর চড়ালো পাকিস্তান।


গত ৯-ই মার্চ পাকিস্তানের খানেওয়াল জেলার মিঞা চান্নু অঞ্চলে ভারতের আকাশপথ থেকে একটি মিসাইল আছড়ে পড়ার কথা জানান পাক সেনাবাহিনীর ডিজি মেজর জেনারেল বাবর ইফতিকার। এই মিসাইল আছড়ে পড়ার কারণে এলাকার বেশকিছু বাড়িঘর নষ্ট হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।


ভুলবশত মিসাইল নিক্ষেপের খবরটি প্রথম প্রকাশ করে রাশিয়ার সংবাদমাধ্যম ‘স্পুটনিক।’ এরপর ভারতের প্রতিরক্ষা দপ্তরের পক্ষ থেকে ঘটনার দায় স্বীকার করে ভারতের রাষ্ট্রদূত বলেন, “ভুলবশত এই ঘটনা ঘটে যাওয়ায় ভারত সরকার চিন্তিত। এর কারণ জানতে দ্রুত তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।” উচ্চ স্তরের তদন্তের জন্য কমিটি ঘোষণার পাশাপাশি ভারত জানায়, এই মিসাইলটি বিস্ফোরকহীন ছিল, ফলে কোনও মানুষ নিহত বা আহত হননি। তবে এই স্বীকারোক্তিকেই যথেষ্ট মনে করছেনা ইসলামাবাদ।

তারা ‘ভুলবশত নিক্ষিপ্ত মিসাইলের’ দুর্ঘটনাটিকে ভারতের প্রতিরক্ষায় প্রযুক্তি ব্যবহারের দুর্বল দিক রূপে চিহ্নিত করে পাল্টা আওয়াজ তুলেছে। এদিন পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা মন্ত্রকের উপদেষ্টা মোঈদ ইউসুফ তাঁর বক্তব্যে বলেন , “স্পর্শকাতর প্রতিরক্ষা প্রযুক্তি ব্যবহারের কোনও যোগ্যতাই ভারতের নেই।”


উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে রাশিয়ার সংবাদ মাধ্যমে খবরটি প্রকাশিত হওয়ার বিষয়ে উল্লেখ করে মোঈদ ইউসুফ অভিযোগ তোলেন, ভিনদেশী সংবাদ মাধ্যম এই ঘটনাটি জনসমক্ষে আনার আগে পর্যন্ত পাকিস্তানকে সেটি জানিয়ে সৌজন্যটুকুও দেখাবার প্রয়োজন মনে করেনি ভারত!

তাছাড়া এর আগেও ইউরেনিয়াম নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করতে গিয়ে এমন দুর্ঘটনা ভারতের ক্ষেত্রে ঘটেছে, এই বক্তব্যের সুযোগে ভারতকে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে এককথায় ‘আনাড়ি’ বলে প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করছে পাকিস্তান। ইসলামাবাদের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টার বক্তব্যে সেটাই প্রকাশ পেয়েছে।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com