IMG_20220526_210204

মালদা থেকে সাইকেল চালিয়ে কলকাতায় চলে এল বালিকা  সায়ন্তিকা দাস। তার আরেকটি বিশেষ পরিচয়, সে ‘কন্যাশ্রী’ সায়ন্তিকা। এই মূহুর্তে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শ্রেষ্ঠ অনুরাগীনিদের মধ্যে সে একজন। মুখ্যমন্ত্রী সম্পর্কে সংবাদ মাধ্যমে দেওয়া ছোট্ট মেয়ে সায়ন্তিকার বিবৃতি এখন রীতিমতো ভাইরাল!

প্রথমত অবাক করেছে মালদা থেকে সাইকেলে পাড়ি দিয়ে এতদূর সায়ন্তিকার মতো ছোট মেয়ের ছুটে আসা শুধুমাত্র মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ দিতে! এরপরেই মুগ্ধ চোখে কলকাতা দেখেছে তার আন্তরিকতা। পশ্চিমবঙ্গের কন্যাদের সাথে একাত্ম হয়ে সে যেন সব ভবিষ্যতের সব ‘কন্যাশ্রী’-দের প্রতিনিধিত্ব করেছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি ছোট্ট মেয়ের সম্ভাষণের কায়দাটিও বেশ অভিনব।

‘কন্যাশ্রী’তে পাওয়া সাইকেলে মালদা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে দেখা করতে পাড়ি দিয়েছিল ক্লাস টু-র এক ছাত্রী যার নাম সায়ন্তিকা দাস। সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর জন্য উপহার হিসেবে আমসত্ত্ব নিয়ে এসেছিল মেয়েটি। স্বভাবতই আপ্লুত পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। তিনি নিজেহাতে সায়ন্তিকাকে তাঁর ‘কবিতা বিতান’ বইটি উপহার দিয়েছেন।


‘কবিতা বিতান’ হাতে মেলে ধরে ছোট্ট মেয়ে সায়ন্তিকা সংবাদমাধ্যমে তাঁর মুগ্ধতার কথা প্রকাশ করেছে। ক্লাস টুয়ের ছোট্ট মেয়েটি জানায়, “মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মহাশয়া মেয়েদের খুব ভালোবাসেন। আমি ২০২৪ সালে মাননীয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই!”

ছোট্ট মেয়ের আদুরে গলায় মুখ্যমন্ত্রীকে প্রধানমন্ত্রী দেখতে চাওয়ার আবেদন নাকি আব্দার! সে যাই হোকনা কেন পশ্চিমবঙ্গের সকল মানুষেরই বিশেষ নজর কেড়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরোধীরাও এই মেয়েটির বক্তব্য উপভোগ না করে পারবেননা। এটা অন্তত নিশ্চিত করেই বলা যায়।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com