VoiceBharat News images 2022 05 10T174602.778

পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের নির্যাতিত সংখ্যালঘুদের ভারতে ফেরানোর অ্যাজেন্ডা সামনে রেখেই প্রণয়ন করা হয়েছিল সিএএ আইন। অথচ সাম্প্রতিক তথ্য বলছে, আবেদন করা সত্ত্বেও ভারতের নাগরিকত্ব না পেয়ে অবশেষে পাকিস্তানে ফিরে গিয়েছেন অন্ততপক্ষে ৮০০ জন হিন্দু!

VoiceBharat News images 2022 05 10T174547.907


পাকিস্তান থেকে চলে আসা ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের হয়ে একটি সার্ভে করেছে রাজস্থানের একটি এনজিও সংস্থা, এর নাম ‘সীমান্ত লোক সংসস্থান’। এনজিওটি সম্প্রতি তাদের সার্ভের রিপোর্টে এই গুরুত্বপূর্ণ তথ্যটি প্রকাশ করেছে। অবশ্য এর কারণও অনুসন্ধান করে দেখেছে এই সংস্থা। তাঁদের মতে নাগরিকত্ব আবেদন করে কিছুকাল ভারতে কাটিয়ে অন্য দেশে ফিরে গিয়েই তারা ভারতবিরোধী রূপ দেখিয়েছে।

‘সীমান্ত লোক সংস্থান’-এর সভাপতি হিন্দু সিং লোধার বলেছেন, “ভারত থেকে পাকিস্তানে ফিরেই ওইসব হিন্দুরা ভারতের বদনাম করতে শুরু করে। তারা প্রকাশ্য মাধ্যমে জানায়, ভারতে তাদের ওপর অত্যাচার করা হয়েছে।”

VoiceBharat News 375044 9

লোধা সংশয় প্রকাশ করে আরো জানিয়েছেন, এর মূলে রয়েছে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংগঠনগুলি। তারাই ভারতের লোকজনকে দিয়ে ভারতের বদনাম করাচ্ছে।
উল্লেখ্য, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তথ্য অনুসারে ২০২১ সাল পর্যন্ত ভারতের নাগরিকত্ব পেতে ১০ হাজারের বেশি মানুষ আবেদনপত্র জমা দিয়েছেন। অথচ তাদের পুনর্বাসন হয়নি। এর কারণ হিসেবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছে সিএএ আইন হলেও এখনও তা কার্যকর হয়নি। তার আগেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক বিদেশিদের নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য একটি অনলাইন আবেদনের রাস্তা খুলে দেয়।

তারই মারফতে পাকিস্তান, আফগানিস্থান ও বাংলাদেশের সংখ্যালঘু হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, শিখ, খ্রিষ্টান ও জৈন সম্প্রদায়ের বহু মানুষজন ভারতের নাগরিকত্ব পেতে আবেদন করতে শুরু করে।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com