pro (30)

কর্ণাটকের হিজাব বিতর্ক যেন কিছুতেই থামছেনা, বরং একাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তির মতামত ঘিরে ক্রমশই জটিল হয়ে উঠছে। যদিও আদালত এই ব্যাপারে নিরপেক্ষ নির্দেশ জারি করেছে, কিন্তু ধর্মীয় চেতনা এবং সাংস্কৃতিক বিতর্ক আইন করার সাথেসাথেই তো আর রাতারাতি পাল্টে যায়না! মতামত প্রকাশের স্বাধীনতা প্রত্যেকেরই আছে। কিন্তু কর্ণাটকের সাম্প্রতিক বিতর্কে মত প্রকাশ করতে গিয়ে অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তিই ঝামেলার মূল কারণটি বেমালুম ভুলে অপ্রাস‌ঙ্গিক বিতর্ক টেনে আনছেন, যার ফলে একে অপরের বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করে যা খুশি তাই বলে চলেছেন। যেমনটা ঘটল তসলিমা নাসরিন ও আসাদউদ্দিন ওয়েসির বিতর্কে।

তসলিমা নাসরিনকে এবার খোলাখুলি আক্রমণ করলেন এআইএআইএম সংগঠনের নেতা আাসাদউদ্দিন ওয়েসি। তিনি তসলিমা নাসরিনকে “নিজের দেশ থেকে নির্বাসিতা এবং ঘৃণার প্রতীক” বলে কটুক্তি করেছেন।


সম্প্রতি এক বক্তব্যে চিকিৎসক লেখিকা তসলিমা নাসরিন বলেছিলেন, “একটি ধর্ম নিরপেক্ষ দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ধর্মীয় ভেদাভেদহীন পোশাকই পরা উচিত।” এর সপক্ষে যুক্তি দিয়ে “বোরখা আসলে পুরুষতান্ত্রিকতার প্রতীক” এমনটাই উল্লেখ করতে চেয়েছিলেন লেখিকা।

তসলিমা নাসরিনের এই বক্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন ওয়েসি। তিনি সাফ জানান, “আমি এমন কোনও মানুষকে উত্তর দিতে চাইনা যিনি ঘৃণার প্রতীকে পরিণত হয়েছেন। এমন কোনও মানুষকে উত্তর দেবনা যাকে ভারতে আশ্রয় নিতে হয়েছিল নিজের দেশে আত্মরক্ষা করতে না পেরে।”


আসাদউদ্দিন ওয়েসি কর্ণাটক বিতর্কের গোড়া থেকেই হিজাব নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্তের বিপক্ষে। তসলিমার বক্তব্য তিনি যে গ্রহণ করবেননা সেটাই স্বাভাবিক। তবে তসলিমাকে ওয়েসির এই ব্যক্তিগত আক্রমণ যেমন অনুচিত, তেমনই তসলিমা নাসরিনের মন্তব্যগুলি যে সাম্প্রতিক বিতর্কের ক্ষেত্রে অপ্রাস‌ঙ্গিক এমনটাও সচেতন মহলের একাংশ মনে করছেন।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com