images - 2022-05-20T174542.439

ছায়া নেই এমন কোনও বস্তু হয়না। একমাত্র ভৌতিক বা অলৌকিক গল্পেই এমন জিনিসের সন্ধান পাওয়া যায় যাদের আমরা অশরীরী বলি। তবে মুম্বইতে ঘটে যাওয়া এক ঘটনা সেই ধারণাকে ওলটপালট করে দিয়েছে। চমকে উঠেছেন সাধারণ মানুষ।


সোমবারে ভরা দুপুর। মাথার ওপর খটখটে রোদ। অথচ বেশ কিছুক্ষণের জন্য আশপাশের কিছুরই ছায়া পড়েনি মাটিতে! এমনকি মানুষেরও নয়! একইসময়ে একসাথে প্রচুর মানুষ বিষয়টি লক্ষ্য করেন এবং এটা লক্ষ্য করে ভয়ে হৃদস্পন্দন প্রায় বন্ধ হয়ে যাবার অবস্থা। এটা কী ব্যাপার? কোনও ভঙ্কর দুর্যোগের আগাম সংকেত নাকি?

মুম্বাই শহরের বিশেষ এক জনবহুল স্থানে দুপুরবেলায় ঠিক ১২: ৩৫ মিনিট নাগাদ ঘটনাটি ঘটে। ওই সময় সেখানে অবস্থিত গাছপালা, মানুষ, পশুপাখি, দোকানপাট কোনও কিছুরই ছায়া পড়ছিলনা। অবিশ্বাস্য এই ব্যাপার চোখের সামনে ঘটতে দেখে সকলেই তাজ্জব বনে যান। সেটাই স্বাভাবিক। তবে বিজ্ঞানীরা বলছেন এটা কোনও অলৌকিক ব্যাপার নয়। এর নেপথ্যে রয়েছে যুক্তিযুক্ত বৈজ্ঞানিক কারণ।


বৈজ্ঞানিক পরিভাষায় এই ঘটনার দিনটিকে বলা হচ্ছে ‘জিরো শ্যাডো ডে।’ বিজ্ঞানীদের মতে একটি বছরে একটি বিশেষ নির্দিষ্ট জায়গায় সর্বাধিক ২ বার এমন ঘটনা ঘটতে পারে।

‘অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটি অফ ইন্ডিয়া’ বলছে, ‘জিরো শ্যাডো ডে’ দেখা যায় নির্দিষ্ট দিনে ও নির্দিষ্ট সময়ে পৃথিবীর অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশের বিশেষ অবস্থানের জন্য। সকলেই জানেন পৃথিবী তার নিজের কেন্দ্রের দিকে ৬৬.৫ ডিগ্রী কোণে হেলে রয়েছে।

তাই যে জায়গাগুলি +২৩.৫ ডিগ্রী এবং -২৩.৫ ডিগ্রি অক্ষাংশের মধ্যে অবস্থান করছে সেখানে সূর্য দিনের সর্বোচ্চ বিন্দুতে পৌঁছে গেলে ওই সময়ে নির্দিষ্ট জায়গার ছায়া অদৃশ্য হয়ে যেতে পারে। ছায়া দৃশ্যত হয় আলোর কারণেই। আর আলোর বিশেষ অবস্থানের কারণেই মূলত ‘জিরো শ্যাডো’-ডে (ছায়াহীন দিবস) দেখা যায়।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com