images - 2022-03-26T234449.209

এখন বিনিয়োগের নানা ক্ষেত্র প্রচলিত রয়েছে। অনেকক্ষেত্রেই চড়া সুদ পাওয়ার প্রলোভনে অনেকে বেসরকারি বিভিন্ন স্কিমে টাকা বিনিয়োগ করে থাকেন। কিছু স্কিম হয়তো ঠিকঠাক, তেমনই আবার কিছু ক্ষেত্রে ঝুঁকিও থেকে যায়। সুতরাং সবদিক ভেবেচিন্তে তবেই কোনও একটি স্কিমে বিনিয়োগ করা উচিত। এক্ষেত্রে পোস্টঅফিসের কিছু দুর্দান্ত স্কিম রয়েছে।


পোস্ট অফিসে যাদের অ্যাকাউন্ট রয়েছে বা নতুন অ্যাকাউন্ট খুলেও বিনিয়োগ করা যায়, খুবই ন্যুনতম টাকা দিয়ে যেই স্কিমটিতে বিনিয়োগ করা যায় একই সঙ্গে প্রতিমাসে সুদের টাকা পাওয়া যাবে সেটি হল মান্থলি ইনকাম স্কিম। এই স্কিম একাধারে নিরাপদ ও লাভজনক। তাহলে একবার এই স্কিমটির কয়েকটি বিশেষ দিক জেনে নেওয়া যাক।


মান্থলি ইনকাম স্কিমের একটা বড় সুবিধা হল, এখানে এক বা একাধিক ব্যক্তি একসাথে বিনিয়োগ করতে পারেন এবং দরকার অনুযায়ী আপনার অ্যাকাউন্টটিকে সিঙ্গল থেকে জয়েন্ট বা জয়েন্ট থেকে সিঙ্গলে কনভার্ট করে নেওয়া যায়।
পোস্ট অফিসের মান্থলি ইনকাম স্কিমে ন্যুনতম ১০০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৪.৫ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করা সম্ভব। এটা সিঙ্গল ইনভেস্টমেন্টের ক্ষেত্রে। দুজন ব্যক্তি জয়েন্টলি করলে এই অঙ্কেরই দ্বিগুণ অর্থাৎ সর্বোচ্চ ৯ লক্ষ টাকা অবধি বিনিয়োগ করা যায়। স্কিমটির পরিণতির মেয়াদ ৫ বছর হয়ে থাকে।

তবে  ৫ বছরের আগেও টাকা তোলা যায়, সেক্ষেত্রে বেশ বড়সড় একটি পার্সেন্টেজ কেটে তবেই দেওয়া হয়। তবে অ্যাকাউন্ট খোলার পর ন্যুনতম ১ বছরের আগে টাকা তোলা যায়না। তথ্যসূত্র অনুযায়ী মান্থলি ইনকাম স্কিমের ক্ষেত্রে প্রতি মাসে সুদের হার। ৬.৬ শতাংশ।


এই স্কিমের আরো একটি সুবিধা হল অ্যাকাউন্ট চালু হওয়ার পরেও ইচ্ছে হলে কাউকে নমিনি নিযুক্ত করতে পারেন এবং প্রয়োজন হলে অ্যাকাউন্টটি এক পোস্ট অফিস থেকে অন্য পোস্ট অফিসেও ট্রান্সফার করাতে পারবেন।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com