epfo_2_0-sixteen_nine

‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’ উপলক্ষ্যে বেশ কিছু প্রকল্প নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। তারই একটি হল এই ‘পেনশন দান যোজনা।’ এটি আসলে একটি ফান্ড, যেখানে খুব কম প্রিমিয়াম দিয়ে আপনার সহযোগীদের বয়সকালীন পেনশনের ব্যবস্থা খুব সহজেই করতে পারবেন।


আমরা জানি, সরকারি প্রতিষ্ঠান বা বৃহৎ পুঁজিসম্পন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বাদ দিলে বেশিরভাগ ছোটখাটো বেসরকারি সংস্থায় প্রভিডেন্ট ফান্ড অথবা পেনশন বলে কিছু থাকেনা। বয়সকালীন সাহায্য অবশ্যই ব্যক্তিমালিকরা তাদের কর্মীদের অনেকসময় করেই থাকেন, তবে সেটি হলো ব্যক্তিগত উদ্যোগে সাহায্য প্রদান।


এবার এই ব্যক্তিগত উদ্যোগকেই সরকারি নিয়মে সহজেই বাস্তবায়িত করার সুযোগ নিয়ে হাজির কেন্দ্রীয় সরকারের এই নতুন পেনশন দান যোজনা। কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রী ভূপেন্দ্র যাদব সোমবার এই পেনশন স্কিমটির ঘোষণা করেন। তিনি জানান, “এই পেনশন স্কিমটি ‘প্রধানমন্ত্রী শ্রম যোগী ধন মান’-এরই একটি অনুসারী প্রকল্প। এর মাধ্যমে যেকোনও ব্যক্তি তাঁর সহযোগী কর্মীর ফান্ডে পেনশনের বরাদ্দ অর্থ জমা করতে পারবেন।”

শ্রমমন্ত্রী এই যোজনার বিশেষত্ব ব্যাখা করে বলেন, “এই স্কিমটির মাধ্যমে অসংগঠিত শ্রমিক যেমন বাড়ির পরিচারক, ড্রাইভার, বা যেকোনও সহায়ক কর্মীকে বয়সকালীন পেনশনের ব্যবস্থা করে দিতে পারেন ব্যক্তি।”
শ্রমমনন্ত্রীর বর্ণনা অনুসারে, ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সী ব্যক্তিদের এই প্রকল্পের আওতায় নাম নথিভুক্ত করানো যাবে। বার্ষিক প্রিমিয়াম ৬৬০ টাকা থেকে ২০২৪ টাকা পর্যন্ত, এই টাকার অঙ্ক বয়সের অনুপাতে নির্ধারিত হবে। বছরে এই প্রিমিয়াম প্রদান করলে, ৬০ বছর বয়সী আপনার কর্মী বা সহকারী প্রতি মাসে ৩,০০০ টাকা করে পেনশন পাবেন।


৭ মার্চ মার্চ থেকে শুরু হয়েছে ‘পেনশন দান যোজনা’-র বিশেষ ক্যাম্প, চলবে ১৩ মার্চ পর্যন্ত। এই ক্যাম্প চলাকালীন ই-শ্রমের মাধ্যমে ২৫ কোটি রেজিস্ট্রেশনের কর্মসূচি গ্রহণ করেছে শ্রমমন্ত্রক। এছাড়া ‘ন্যাশনাল কেরিয়ার সার্ভিস সেন্টারের’ পক্ষ থেকে চাকরি মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com