IMG_20220306_131906

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের আবহাওয়া প্রভাবিত করছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশকে। এই পরিস্থিতিতে অন্যান্য সমৃদ্ধ দেশগুলি যখন রাশিয়ার দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে, আমেরিকা সহ পশ্চিমি দেশগুলোর সাথে সমস্যার মুখে রাশিয়ার অর্থনৈতিক লেনদেন সহ সমস্ত আদানপ্রদান –একমাত্র ভারতই রাশিয়ার পক্ষে ‘নিরপেক্ষ’ সহাবস্থান করছে। আর এই সময়টাই ভারতের কাছে সুবর্ণ সুযোগ, যদি রাশিয়ার দিকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেয় তবে ভারতই সবচাইতে লাভবান হবে।


আসলে ভারত মৌখিক বয়ানে নিরপেক্ষ বললেও, রাশিয়ার বন্ধুদেশ হিসেবেই অবস্থান করছে ভারত, এই অবস্থান রাশিয়ার কাছে অজানা নয়। উল্টোদিকে ভারতীয় পড়ুয়াদের ইউক্রেন থেকে ফেরাতেও সাহায্য করছে রাশিয়া। তাই সেই দেশটি এবার একরকম খোলাখুলি অফারই দিয়ে বসল ভারতকে। অবশ্য অফার গ্রহণ না করলে তার বিপরীতে ছোট্ট করে হুমকিও দেওয়া হয়েছে।

 

শনিবার ভারতে দায়িত্বপ্রাপ্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত ডেনিস আলিপভ বলেন , “ইউক্রেন পরিস্থিতিতে রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপালে তার ফল গোটা বিশ্বকেই ভুগতে হবে।” এরপর স্পষ্টতই ভারতকে উদ্দেশ্য করে তিনি বার্তা দেন, পশ্চিমি দেশগুলো যখন অসহযোগিতার মনোভাব পোষণ করছে, তখন ভারতই রাশিয়ার সহযোগী হয়ে উঠতে পারে। আর এতে ভারতের ব্যবসায়ীদেরই লাভ, কেননা অন্য দেশগুলোর সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তারা এগিয়ে যাবে। ভারত রাশিয়ার সাথে থাকলে দুই দেশেরই আর্থিক আদানপ্রদান ও অন্যান্য ক্ষেত্রেও সুবিধা হবে।

বিশ্ব পরিস্থিতির আঁচ দিয়ে ডেনিস আলিপভ বলেন, “এই পরিস্থিতির সুযোগ নেওয়াই ভারতের পক্ষে বুদ্ধিমানের কাজ। পাশ্চাত্যের দেশগুলি আমাদের সহযোগিতা করছেনা। এটা ভারতীয় ব্যবসায়ীদের কাছে বিরাট এক সুযোগ।”


তিনি আরো বলেন, “ইউক্রেন-রাশিয়া পরিস্থিতির পর এর প্রভাব গোটা বিশ্বের ওপর পড়বে। ভারত-রাশিয়া সম্পর্কেও প্রভাব পড়বে, তবে কতটা সেটা এখনই বলা যাচ্ছেনা।”
এই প্রভাব অনুকূল বা প্রতিকূল হওয়ার সংকেতের মধ্যেই প্রচ্ছন্ন একটা হুঁশিয়ারি রয়েছে, পাশাপাশি ভারতকে সহায়তার জন্য রাশিয়ার প্রকাশ্য আহ্বান।

By Partha Roy Chowdhury (কিঞ্জল রায়চৌধুরী)

Partha Roy Chowdhury (Bengali: কিঞ্জল রায়চৌধুরী) is staff journalist VoiceBharat News. email: kinjol@voicebharat.com